নিয়মিত নামাজ আদায় করায় 

কাপ্তাই শীলছড়ি মসজিদ কমিটির ব্যতিক্রমী পুরস্কার

fec-image

কাপ্তাইয়ের শীলছড়ি পুরাতন জামে মসজিদ কমিটি ব্যতিক্রমধর্মী কাজে ব্যতিক্রম পুরস্কার প্রদান করায় হতবাক হয়েছে এলাকার সর্বত্র লোকজন। এতদিন শুনেছি, খেলাধুলায় পুরস্কার, নিত্যসংগীত, সাস্কৃতিক কাজসহ বিভিন্ন কাজে পুরস্কার প্রদান করা হয়ে থাকে। এখন দেখি নিয়মিত নামাজ আদায় করায় পুরস্কার প্রদান।

শীলছড়ি পুরাতন জামে মসজিদ কমিটিরি সদস্যরা দেখতে পায় মসজিদে নামাজ আদায় করতে লোকসংখ্যা এবং স্কুল, কলেজ শিক্ষার্থীরা কম আসছে বিধায় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. আবুল কাশেম সকলের মাঝে ঘোষণা দেন যারা তিন মাস নিয়মিত মসজিদে আসবে এবং নামাজ আদায় করবে তাদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করা হবে। বিশেষ করে ৬শ্রেষ্ঠ শ্রেণী থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের এ পুরস্কার প্রদান করা হবে। যেই ঘোষণা সেই কাজ। গত তিন মাস যাবৎ এলাকার লোকজন তথা স্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে রিতিমত শুরু হয় মসজিদে পাঁচওয়াক্ত জামাতে নামাজ আদায় করার কাজ।

আর এতে করে মসজিদে পূর্বের তুলনায় বর্তমানে অনেক ব্যক্তি ও স্কুল, কলেজ শিক্ষার্থীদের মসজিদ কেন্দ্রিক নামাজের প্রতি উপস্থিতি দেখাযায় অনেক বেশি। এদিকে মসজিদ কমিটি ঘোষণা দেওয়ার পর বিষয়টি নিয়মিত মনিটরিং করতে থাকে। এবং একাজে যে বিজয়ী হবে তাকে উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. নাছির উদ্দিন প্রথম পুরস্কার প্রদান করার ঘোষণা দেন।

শুক্রবার(৩ জুলাই) জুমার নামাজ শেষে শিলছড়ি পুরাতন জামে মসজিদে নিয়মিত নামাজ আদায় করায় ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আমির হোসেন রাফি প্রথম হওয়ার ফলে তাকে আনুষ্ঠানিক ভাবে কাপ্তাই উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান মো. নাছির উদ্দিন একটি বাইসাইকেল প্রদান করেন। এ ছাড়া মো. আরিফ ও ইকবাল হোসেন এদের পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এসময় সমজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার আবুল কাশেম, সহসভাপতি আব্দুল ওহাব, যুগ্মসম্পাদক ও ইউপি সদস্য মাহাবুব আলম, মসজিদের খতিক হাফেজ মাওলানা আবুল কালামসহ বিভিন্ন মুসল্লিগণ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক এ ব্যতিক্রমধর্মী পুরস্কারের ব্যাপারে বলেন, দেখছি বর্তমানে অনেক শিক্ষার্থীরা মসজিদে না এসে খেলাধুলা করে বিভিন্ন খারাপ কাজে জড়িত হয়ে যাচ্ছে। তাই মসজিদ মুখী হলে এরা আর খারাপ কাজে যাবেনা তিনমাস নামাজ আদায় করলে এরা ভালো হয়ে যাবে তাই এ ব্যাতিক্রমর্ধী আয়োজন। এ কাজে এলাকার লোকজন হতবাক এবং প্রশংসা করেন মসজিদ কমিটিকে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − nine =

আরও পড়ুন