কুতুবদিয়ায় অমাবশ্যার জোয়ারে ১৫ গ্রাম প্লাবিত

fec-image

কুতুবদিয়ায় অমাবশ্যার অস্বাভাবিক জোয়ারের ফের পানিতে তলিয়ে গেছে উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের ১৫ টি গ্রাম। শুক্রবার ও শনিবার প্রতিদিন ৪ বার জোয়ারের অতিরিক্ত লবনাক্ত পানিতে গ্রামগুলো প্লাবিত হয়েছে বলে স্থানিয়রা জানান।

উত্তর ধুরুং চর ধুরুং গ্রামের জালাল আহমদ জানান, এ ইউনিয়নে এখনো ৫টি পয়েন্ট অরক্ষিত। মেরামত না হওয়ায় অস্বাভাবিক জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেলেও লোকালয়ে চলে আসে লবনাক্ত পানি। শুক্রবার ও শনিবার গভীর রাতেও ঘুমাতে পারেনি বাসিন্দারা।

স্থানীয় বাসিন্দা আইনজীবি সহকারি সুজন আহমদ বলেন, টেকসই বোিড়বাঁধ নির্মাণ না হলে সারা জীবন দুর্ভোগ পোহাতে হবে দ্বীপবাসিকে। শতকোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হলেও সময়মত সংস্কার না হওয়ায় “যেই লাউ সেই কদু” অবস্থায় বছরের পর বছর চলছে। তারা এই নাটক থেকে বাচাঁর আকুতি জানান।

উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের মেম্বার ছলিম উল্লাহ, মনসুর রাব্বি ও মোহাম্মদ আলী জানান, অমাবশ্যার অস্বাভাবিক জোয়ারে উত্তর ধুরুং ইউনিয়নে ভাঙা বেড়িবাঁধে অন্তত ৫টি পয়েন্টে সাগরের পানি প্রবেশ করছে। দিনে ২ বার তলিয়ে যাচ্ছে কাইছার পাড়া, পশ্চিম চর ধুরুং,ওয়াইজ্জার পাড়া,ফরিদার পাড়া, জমির বাপের পাড়া, চুল্লার পাড়া, আজিম উদ্দিন সিকদার পাড়া, কিল্লার পাড়া, মিয়ারা কাটা, কালারমার পাড়া, পূর্বচর ধুরুং,হায়দর আলী সিকদার পাড়া, ফুডার পাড়া, চুল্লার পাড়া, নয়াকাটাসহ ১৫ টি গ্রাম।

তারা আরো জানান, এ অমাবশ্যার জোয়ারে ইউৃনিয়নের অন্তত আড়াই‘শ একর আধা পাকা আউশ ধান ক্ষেতে লবনাক্ত পানি প্রবেশ করে। একই ভাবে অন্তত পারিবারিক ৫০০টি পুকুরও তলিয়ে গেছে লবন পানিতে।

এতে প্রায় কোটি টাকার লোকসানে পড়েছে অসহায় মানুষ। সংকট চলছে মিঠা পানিরও। সময়মত বেড়িবাঁধ সংস্কার না হওয়ায় মাসে অন্তত দু‘বার সাগরের পানিতে তলীয়ে যাচ্ছে উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের প্রায় পুরোভাগ। তারা দ্রুত টেকসই বাঁধ নির্মানের জোর দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 3 =

আরও পড়ুন