কুতুবদিয়ায় বৃষ্টিতে লবণ চাষে প্রায় দেড় কোটি টাকা লোকসান

fec-image

কুতুবদিয়ায় হঠাৎ বৃষ্টির ফলে লবণ মাঠে ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছে চাষিরা। এর আগে ঘন কুয়াশায় আবহাওয়া বৈরি থাকায় মাঠে লবণ ওঠাও বন্ধ ছিল। সব কিছু মিলিয়ে দ্বীপ উপজেলার প্রধান লবণ উৎপাদনে মারাত্বক আঘাত পড়েছে। লবণ উৎপাদনের শুরুতেই প্রায় দেড় কোটি টাকা লোকসানে চাষিরা।

উপজেলার ৬ ইউনিয়নে প্রায় ৬ হাজার একর জমিতে এবার লবণ উৎপাদনে চাষিরা মাঠে নেমেছে। পুরো ৫ মাস ব্যাপি লবণ উৎপাদনের মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে একর প্রতি ৭০০ মণ লবণ উৎপাদন হয়ে থাকে।

লবণ চাষি আব্দুল খালেক জানান, হঠাৎ বৃষ্টিতে প্রতি একর লবণ মাঠে ২৫ হাজার টাকা ঘাটতি পড়ে গেল। মাঠে ছড়িয়ে থাকা লবণ, আগামী ১০ দিন লেগে যাবে আবার মাঠ তৈরিতে। যে কারণে এ ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবেনা।

লবণ মাঠের চাষি সাবেক ইউপি সদস্য শফিউল আলম জানান, তিনি ৪ একর জমি লবণ চাষ করেছেন। সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই ঘন কুয়াশার দরুণ মাঠে লবণ তোলা বন্ধ ছিল। আবার শুক্রবার রাত থেকে থেমে থেমে বৃষ্টি হওয়ায় মাঠে উঠতি লবণ তলিয়ে গেছে। মাঠে বিছানো পলিথিন গুটিয়ে ফেলে অপেক্ষা করছেন রোদ কখন ওঠে। পুনরায় মাঠে লবণ তুলতেও অন্তত ১০ দিন লেগে যাবে। সব মিলিয়ে প্রতি একরে ২৫ হাজার টাকার লবণ কমে গেল।

নজর আলী মাতবর পাড়ার লবণ চাষি ও ব্যবসায়ি জাহেদুল ইসলাম জানান, তিনি ৮ একর লবণ চাষ করেছেন। বৃষ্টিতে লবণ চাষে অপুরণীয় ক্ষতি হয়েছে। লবণের দাম কমপক্ষে প্রতিমণ ৩০০ টাকা হলে খরচ তোলা সম্ভব হবে। না হলে শ্রমিক খরচ, জমির লাগিয়ত মূল্যসহ বিভিন্ন খরচও উঠবেনা এবার।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুতুবদিয়া, লবণ চাষ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × five =

আরও পড়ুন