কুতুবদিয়ায় হত্যা মামলায় আসামীর নাম বাদ দিতে বাদীর তদবির

fec-image

কুতুবদিয়ায় আলোচিত জাহাঙ্গীর হত্যা মামলার ১২ আসামীর ৭ জনই বাদীর চোখে নির্দোষ। টাকা দিলে জড়িত নন আর না দিলে আসামি বহাল–এমন তদবির চলছে মামলার বাদীর।

লেমীখালীর পেয়ারাকাটার জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) খুনের ঘটনায় ১২ আসামীর সবাই জড়িত দাবি পুলিশের। আসামীদের মধ্যে মো. জুয়েল, রেজাউল করিম, মো. সায়েম, সাইফুল ইসলাম ও মো. ইউনুছ কুতুবী কারাগারে আছেন। জামিনে রয়েছে মো. রিপন, মোর্শেদ আলম প্রকাশ মনির মাঝি, আবুল কাশেম, মো. তারেক ও জাফর আলম। হামিদ ও খোরশেদ আলম পলাতক।

মামলাটি প্রাথমিক পর্যায়ে আপোষ হবার কথা থাকলেও সব আসামি একমত ও টাকার হিসেবে বনিবনা না হওয়ায় সেটি সম্ভব হয়নি বলে মধ্যস্থতাকারিদের একজন আবু ওমর কোম্পানী জানান।

মামলার ৩নং আসামি রিপন জানান, বাদী আসামীদের নিয়ে বিরাট আর্থিক বাণিজ্য করছেন। চাহিদা মত টাকা দিতে না পারায় তাকে মামলা থেকে বাদ দিচ্ছেনা। যেসব আসামীরা চাহিদা মত টাকা দিতে পারছে তাদেরকে মামলা থেকে বাদ দিতে তদবীর করছেন বাদী নিজেই।

মামলার বাদী দরুদ উল্লাহ বলেন, ১২ আসামীর মধ্যে ৭ জন জড়িত নয়। ঘটনার সাথে জড়িত ৫জন। বিষয়টি তিনি থানায় গিয়ে ওসি‘র(তদন্ত) সাথে পরামর্শ করবেন বলে জানান তিনি।

থানার ওসি (তদন্ত) মো. জুয়েল ইসলাম বলেন, জাহাঙ্গীর হত্যা মামলার ১২ আসামীর সবার সম্পর্কে সম্পৃক্তার সাক্ষ্য পেয়েছেন তারা। কাজেই তারা পুলিশ সুপারের কাছে স্মারকলিপি (এম.ই) প্রেরণ করেছেন বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − 5 =

আরও পড়ুন