কুতুবদিয়ায় ৯৯ শতাংশ ব্যবসায়ি জানে না প্রণোদনা প্যাকেজ কি

fec-image

প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার কভিড ১৯ প্রণোদনা প্যাকেজ নিয়ে ব্যাংকার এবং স্থানীয় উদ্যোক্তাদের মধ্যে মতবিনিময় সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) কক্সবাজার চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এবং আইএলও এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নূরে জামান চৌধুরী।তিনি বলেন, কুতুবদিয়া একটি অবহেলিত অঞ্চল। এখানে অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রচুর সম্ভাবনা থাকলেও স্থানীয় ব্যবসায়ি এবং ক্ষুদ্র মাঝারি উদ্যোক্তাদের মৌলিক দক্ষতার যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দ্বিতীয় ধাপে বরাদ্দকৃত অর্থ (২০২১-২০২২২) যাতে ক্ষতিগ্রস্ত সঠিক উদ্যোক্তারা পায় সেজন্য ব্যাংকারদের আরও আন্তরিক হতে হবে। কক্সবাজার চেম্বার অফ কমার্সের সভাপতি আবু মোরশেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা আক্তার বিউটি, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ওমর হায়দার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আউরঙ্গজেব মাতবর, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ লেলিন দে, দক্ষিণ ধুরুং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলা উদ্দীন আল আজাদ।

মতবিনিময় সভায় সোনালী, কৃষি এবং জনতা ব্যাংকের কর্মকর্তাগণ বক্তব্য রাখেন। এক প্রশ্নোত্তর পর্বে উপস্থিত নারী, অন্যান্য ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ বলেন, কভিড১৯ প্রণোদনা প্যাকেজ সম্পর্কে উনারা অবহিত নন।

জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে অনেক বলেন, স্থানীয় ব্যাংকারদের এই বিষয়ে কোন ধরনের প্রচার প্রচারণা আমরা লক্ষ্য করিনি। তারা বলেন, প্রথম ধাপে প্রাপ্ত উপজেলা ভিত্তিক (২০২০-২০২১) প্যাকেজের অর্থ ইতিমধ্যে শতভাগ ছাড় করা হয়েছে। সঠিক নারী উদ্যোক্তা না থাকায় নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তা দিতে পারেনি।
প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বলেন, পোল্ট্রি এবং ডেইরি খাতে যে ঋণ দেওয়া হয়েছে সে সম্পর্কে তিনি অবহিত নন। সঠিক উদ্যোক্তারা যাতে সহজ শর্তে ঋণ পায় সেই জন্য উনার দপ্তরের সাথে ব্যাংকারদের সমন্বয় করা দরকার।

চেম্বার সভাপতি আবু মোরশেদ চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মহেশখালী এবং কুতুবদিয়াকে ঘিরে অর্থনৈতিক উন্নয়নের যে মহৎ উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন তার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে স্থানীয় যুবসমাজ এবং ব্যবসায়ীদের আরও দক্ষ এবং দূরদর্শী হতে হবে, অন্যথায় সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারবে না। তিনি আরও বলেন, কুতুবদিয়াকে ঘিরে প্রচুর পর্যটনের সম্ভাবনা রয়েছে। ক্ষুদ্র / মাঝারি নারী উদ্যোক্তারা কুতুবদিয়াতে ব্র্যান্ডিং করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ছবি সম্বলিত ছবি, সবিনিয়র এবং ক্রাফট তৈরি করতে পারেন। এ বিষয়ে চেম্বার অফ কমার্স সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × one =

আরও পড়ুন