কোনো ঝুলন্ত আদেশ মানতে চান না কোটা সংস্কারপন্থি শিক্ষার্থীরা

fec-image

সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের ওপর এক মাসের স্থিতাবস্থা জারি করেছেন আপিল বিভাগ। তবে আপিল বিভাগের এই আদেশ প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা

আজ বুধবার (১০ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টায় পূর্বে ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে জমায়েত হয়ে স্লোগান দিতে থাকেন তারা।

পরবর্তীতে আপিল বিভাগের আদেশ ঘোষণার খবর আসলে শিক্ষার্থীরা সেটি তাৎক্ষণিক প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। এসময় তারা রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কে উঠে পরেন এবং মিছিল শুরু করেন। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক, দ্বিতীয় ফটক হয়ে প্রধান ফটকে এসে শেষ হয়। মিছিল পরবর্তীতে আধাঘণ্টা ব্যাপী মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা কোনো ঝুলন্ত সিদ্ধান্ত মানছি না। আমাদের এক দফা দাবি, সংসদে আইন পাস করে সরকারি চাকরির সব গ্রেডে শুধু পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য ন্যূনতম (সর্বোচ্চ ৫%) কোটা রেখে সব ধরনের বৈষম্যমূলক কোটা বাতিল করতে হবে। আমরা পড়ার টেবিলে ফিরে যেতে চাই। দাবি মেনে নেওয়া না পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

আন্দোলন চলাকালীন সময়ে যানজটে আটকা পরেন দিনাজপুর-১ এর সাংসদ মো. জাকারিয়া। পরে তিনি গাড়ি থেকে নেমে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কথা বলেন।

দ্রুত শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিয়ে তাদের পড়ার টেবিলে ফিরে যাওয়ার পরিবেশ তৈরি করে দিতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন