প্রান্তিক কৃষক ও হত-দরিদ্র মানুষ উভয়ে খুশি

খাগড়াছড়িতে অসহায় মানুষের সহায়তায় সেনাবাহিনীর ১ মিনিটের বাজার

fec-image

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ব্যতিক্রমধর্মী একটি উদ্যোগের নাম ‘১ মিনিটের বাজার। করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক ও কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায় মানুষের সহায়তায় ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি’র নির্দেশনায় খাগড়াছড়ি রিজিয়নের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ও সদর জোনের ব্যবস্থাপনায় ১ মিনিটের বাজার চালু করেছে সেনাবাহিনী।

বুধবার(২০ মে) দুপুরে খাগড়াছড়ি ঐতিহাসিক স্টেডিয়ামে ১ মিনিটের “ব্যতিক্রমধর্মী”বাজার উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ফয়জুর রহমান এসজিসি এএফডব্লিউসি পিএসসি।

এ সময় খাগড়াছড়ি সদর জোন কমান্ডার লে. কর্নেল জাহিদুল ইসলাম, বিএম মেজর রুমন পারভেজ ও জিএসওটু মেজর মো. সালাহউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

করোনা পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষ যখন দিশেহারা ঠিক তখনই বিভিন্ন সেবামূলক কার্যক্রম চালিয়ে দেশবাসীর আস্থার জায়গা হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

সেনাবাহিনীর এ উদ্যোগের মাধ্যমে সাধারণ নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে খাদ্য পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে। নামে বাজার হলেও এখানে সবাই তাদের পছন্দের সব উপকরণই পেয়েছেন বিনামূল্যে।

খাগড়াছড়ি স্টেডিয়াম ঘুরে দেখা যায় এখানে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে সবাই যার যার পণ্য সংগ্রহ করছে। এই বাজার থেকে বিনামূল্যে চাল, আলু, পুঁইশাক, বরবটি,  চিচিঙ্গা, করলা, ঢেঁড়স, লেবু, আনারস, সাবান, খাবার স্যালাইন ও সিভিট সংগ্রহ করার সুযোগ পেয়েছেন সাধারণ নিম্ন আয়ের মানুষ।

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রান্তিক চাষীরা তাদের উৎপাদিত কৃষিজ পণ্য যেমন সহজে বিক্রি করতে পারছেন না ঠিক তেমনি নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষও নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী অর্থাভাবে এবং যোগান না থাকায় কিনতে পারছেন না।
সেনাবাহিনীর সদস্যরা এ ১ মিনিটের বাজারের জন্য করোনা প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে নানা ধরনের সবজি কিনে তা বিনামূল্যে তুলে দেন পাহাড়ের প্রতিবন্ধী ও সুবিধাবি ত মানুষের হাতে। এর ফলে প্রান্তিক কৃষকরা যেমন লাভবান হচ্ছেন তেমনি লাভবান হচ্ছেন হত-দরিদ্র মানুষগুলোও।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগে খুশি সাধারণ প্রান্তিক চাষীরা এবং নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষগলো। বাজারে এসে অনেক দরিদ্র মানুষই আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন নিজের পছন্দের পণ্যসামগ্রী এত সহজে বিনামূল্যে পাবার ব্যবস্থা দেখে। তারা সবাই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও সাধুবাদ জানিয়েছেন। তারা চান ভবিষ্যতেও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এই ধরনের সেবামূলক কাজ চালিয়ে যাক।

খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ফয়জুর রহমান জানান, সেনাবাহিনীর সেবাধর্মী কাজ এ বাজার ব্যবস্থাপনা ভবিষ্যতেও এ ধরনের উদ্যোগ চালিয়ে যাবার পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে বিপদগ্রস্ত প্রান্তিক কৃষক ও সাধারণ নিম্ন আয়ের মানুষ। খাগড়াছড়ির প্রত্যন্ত এলাকা থেকে এ সব পণ্য ন্যায্যমূল্যে কিনে আনা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস, খাগড়াছড়ি, সেনাবাহিনী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six + six =

আরও পড়ুন