খুলনায় মন্দির-প্রতিমা-বাড়িঘর ভাংচুরের প্রতিবাদে

খাগড়াছড়িতে জাগো হিন্দু পরিষদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

fec-image

খুলনার রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের শিয়ালী গ্রামে ১০টি মন্দির প্রতিমা ভাংচুর ৫৮টি বাড়িঘর-ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর-হামলা-লুটপাট-নারীদের শ্লীলতাহানি এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর নিপিড়ন-নির্যাতনের প্রতিবাদে ও ট্রাইবুনাল গঠন করে দোষীদের দ্রুত বিচার শাস্তি নিশ্চিত এবং সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের দাবিতে খাগড়াছড়ির জেলা সদরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। প্রচণ্ড বৃষ্টি উপেক্ষা করে জেলার কয়েকশত হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষ মানববন্ধনে অংশ নেয়।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টায় জাগো হিন্দু পরিষদ’ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার উদ্যোগে জেলা শহরের শাপলা চত্বরে মানববন্ধনে এমন জঘণ্য ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অনতিবিলম্বে প্রকৃত দোষীদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত মন্দিরগুলো পুনঃ সংস্কার, ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও পরিবারগুলোর পুনর্বাসন এবং ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান। মানববন্ধন থেকে বক্তারা সারা দেশে সংখ্যালঘুদের নিপিড়ন-নির্যাতন বন্ধের দাবি জানান।

জাতীয় হিন্দু পরিষদের খাগড়াছড়ি শাখার সভাপতি তুষার কান্তি ধর’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, সনাতন সমাজ কল্যাণ পরিষদের খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা শাখার সভাপতি সুজিত দাশ, সাধারণ সম্পাদক সুমন আচার্য্য, বাংলাদেশ গীতা শিক্ষা কমিটির খাগড়াছড়ি জেলা শাখার আ্বায়ক প্রভাত তালুকদার, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু যুব ও ছাত্র মহাজোট’র খাগড়াছড়ি শাখার আহবায়ক রানা দাশ প্রমুখ।

এসময় মানববন্ধনে জাতীয় হিন্দু পরিষদের খাগড়াছড়ি শাখার সদস্য প্রণব দে’ র সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় হিন্দু পরিষদের খাগড়াছড়ি শাখার অর্থ সচিব নয়ন দেবনাথ।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার (৭আগস্ট) খুলনার রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের শিয়ালী গ্রামে কয়েকটি মন্দির এবং স্থানীয় হিন্দু মালিকানাধীন কিছু দোকান ভাংচুর হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fifteen + eleven =

আরও পড়ুন