উখিয়া কলেজে ক্রীড়া সপ্তাহ শুরু

খেলাধুলার মাধ্যমেই দেশপ্রেমের উন্মেষ ঘটে

fec-image

খেলাধুলার মাধ্যমেই দেশপ্রেম তথা জাতীয়তাবাদের উন্মেষ ঘটে। তাই মাদকমুক্ত সমাজ গঠন এবং ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে দেশপ্রেম জাগ্রত করার পাশাপাশি শারীরিক মানসিক বিকাশে উখিয়া কলেজে সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সপ্তাহ শুরু হয়েছে।

সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় দক্ষিণ কক্সবাজারের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ উখিয়া কলেজে ক্রীড়াসপ্তাহ’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অজিত কুমার দাশ একথা বলেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ক্রীড়াই শক্তিই ক্রীড়াই বল। ক্রীড়াই তারুণ্যকে উজ্জীবিত করে। একমাত্র ক্রীড়ার মাধ্যমে ভ্রাত্ববোধ, অসাম্প্রদায়িকতা এবং সুদৃঢ় করে।

তিনি বলেন, সারাবিশ্বের যুদ্ধ-যুদ্ধ খেলা রুঁখে দিয়ে অলিম্পিক, সাফ কমনওয়েলথ গেমস আজ বিশ্ব-ভ্রাতৃত্ববোধ সৃষ্টিতে নন্দিত হয়েছে। তৎমধ্যে বাংলাদেশও গর্বিত সদস্য হিসেবে প্রতিনিধিত্ব করছে।

উদ্বোধকের বক্তব্যে উখিয়া কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ফজলুল করিম বলেন “সুস্থ দেহ ও সতেজ মন ধরে রাখতে খেলাধুলা ও শারীরিক পরিশ্রমের কোন বিকল্প নেই”। তাই প্রতিবছর এ ধরণের আয়োজন করার আহ্বান জানিয়ে বেলুন উড়িয়ে ক্রীড়া সপ্তাহ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এর আগে পবিত্র গ্রন্থ থেকে কোরআন, ত্রিপিটক, গীতা পাঠ ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়।

কলেজের সকল শিক্ষার্থীদের ৪ভাগে ভাগ করা হয়। তৎমধ্যে “বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, পল্লী কবি জসিম উদ্দিন, মহাকবি আলাউল” এর নামে ছাত্র-ছাত্রীরা দৌঁড়, দীর্ঘ লাফ, উচ্চ লাফ, গোলক নিক্ষেপ, ম্যারাথন দৌঁড়, হাড়ি ভাঙ্গা, আলু চামচ, কাবাড়ি, চেয়ার ছন্দ, লাঠি দৌড়, ঝুড়িতে বল নিক্ষেপসহ মোট ১৮টি ইভেন্টের আয়োজন করা হয় বলে জানিয়েছে ক্রীড়া উদযাপন কমিটির সদস্য প্রভাষক জালাল আহমদ।

উপস্থিত ছিলেন, রাষ্ট্রবিজ্ঞানের বিভাগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী, ব্যবস্থাপনা বিভাগের চেয়ারম্যান শাহ আলম, সহকারী অধ্যাপক রফিকুল আলম চৌধুরী, শিক্ষক পরিষদের সেক্রেটারী সৈয়দ আকবর, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম চৌধুরী, প্রভাষক নবী হোছাইন, জীব বিজ্ঞানের প্রভাষক ড. গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।

আইসিটি’র প্রদর্শক প্লাবন বড়ুয়া’র সঞ্চালনায় খেলা পরিচালনা করেন প্রশিক্ষক শাহ আলম কাজল, হিসাবরক্ষক জিয়াউল হক। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় অর্থনীতির প্রভাষক জালাল আহমদ, শরীরচর্চা শিক্ষক মোহাম্মদ ইকবাল। ফলাফল প্রস্তুত ও বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন, আইসিটির প্রভাষক আমানত উল্লাহ, জয়ন্তী রানী মজুমদার, জেসরাত পারভীন, নাসরিন জাহান মিলি, ফজিলা হাসান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উখিয়া, ক্রীড়া, দেশপ্রেম
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + 4 =

আরও পড়ুন