গরম খাবার খেয়ে জিভ পুড়ে গেলে করণীয়

fec-image

তাড়াহুড়োয় কখনও কি গরম কফি বা চা চুমুক দিয়েছেন? ফলাফল, জিভ পুড়ে গেছে। টানা কয়েকদিন খেতে কষ্ট, সারাক্ষণ জ্বালা করে, অস্বস্তি হয়।

গরম চা, কফি, স্যুপ পান করার সময় জিভ পোড়ানো খুব সাধারণ বিষয় এবং আমাদের সবারই কম বেশি এই অভিজ্ঞতা রয়েছে। জেনে নিন জিভ পুড়লে জ্বালাপোড়া থেকে মুক্তি পাওয়ার কয়েকটি ঘরোয়া পদ্ধতি:

আইসক্রিম বা কিছু বরফ রাখুন ফ্রিজে। অল্প অল্প করে আইসক্রিম খেলে প্রদাহ কমিয়ে তা‍ৎক্ষণিক স্বস্তি দেবে। টিস্যুকে আরও ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করবে ছোট এক টুকরো বরফ বা এক বাটি আইসক্রিম।

মধুতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা জিভের জ্বালা কমাতে সাহায্য করে। এক চামচ মধু মুখে রাখুন উপকার পাবেন।

পোড়া জিভের চিকিৎসা করার জন্য অন্যতম সেরা ঘরোয়া প্রতিকার হচ্ছে দই। জিভ পুড়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে কয়েক চামচ দই খান।

ছোট বেলায় জিভ পুড়ে গেলে একমাত্র ঘরোয়া চিকিৎসা ছিল সামান্য চিনি খাইয়ে দেওয়া। এখনো কাজে দেবে, জিভে কিছু চিনি ছড়িয়ে দিন এবং এটি ধীরে ধীরে মেশার জন্য অপেক্ষা করুন। কিছুক্ষণ পরে অনুভব করুন, ব্যথাটি এমনিতেই চলে যাবে।

বিভিন্ন ধরনের পোড়া ও জখমের চিকিৎসার একটি জনপ্রিয় ঘরোয়া উপায় অ্যালোভেরার ব্যবহার। অ্যালোভেরা জেল ক্ষতিগ্রস্ত কোষগুলোকে দ্রুত সারিয়ে তোলে।

গরম খাবার খাওয়া বা পান করার সময় যা মনে রাখতে হবে-

• খুব গরম তরল পান করবেন না
• সব খাবারই সহনীয় তাপমাত্রায় এলে তারপরেই খেতে হবে
• জিভ পুড়ে গেলে লেবু, কমলা বা আনারস খাওয়ার সময় আরও জ্বালা করতে পারে
• মশলাদার খাবারগুলোও দুই একদিন কম খান, তার পরিবর্তে আতপ চালের নরম ভাত বা দুধ ভাতও খেতে পারেন।

তবে বেশি জ্বলে গেলে বা জ্বালা করলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, গরম খাবার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 2 =

আরও পড়ুন