গুইমারা থেকে পাচারকালে ১৫মে.টন সরকারি চাল আটক করেছে সেনাবাহিনী

fec-image

খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার গুচ্ছ গ্রামের সরকারি চাল পাচারকালে মানিকছড়িতে আটক করেছে সেনাবাহিনী। শনিবার(১৯ জুন) গুইমারা থানায় আটককৃত চাল জমা দেয়া হয়েছে।

জানাযায়, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মানিকছড়ি সাব জোনের সেনাবাহিনী বুধবার(১৬ জুন) বিকালে মানিকছড়ির একটি অটো রাইস মিলে আনলোড করার সময় ১৫মেট্রিক টন চাল বোঝাই একটি ট্রাক (নম্বর ঢাকামেট্রো ট ১৮৪২৭৯) আটক করে। আটককৃত চালের বৈধকোন কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় শনিবার সন্ধ্যায় ট্রাকসহ আটককৃত চাল গুইমারা থানায় জমা দেয় সেনাবাহিনী। এসময় ট্রাকের চালক ও চাল ব্যবসায়িকেও থানায় সোর্পদ করা হয়।

জানাযায়, আটককৃত চালগুলো গুইমারার বিভিন্ন গুচ্ছগ্রামের। অন্যান্য উপজেলার মত গুইমারার চারটি গুচ্ছগ্রামের রেশনকার্ডধারির জন্য সরকারিভাবে প্রতি তিন মাস অন্তর গম ও চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। গত ১৫ জুন তিন মাসের রেশনের খাদ্যশস্য বিতরণের জন্য সংশ্লিষ্ট গুচ্ছগ্রামের প্রকল্প চেয়াম্যানগণ সরকারি খাদ্য বরাদ্দকৃত গম ও চাল উত্তোলন করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাযায়, ১৫ জুন গুইমারা খাদ্য গুদাম থেকে চাল উত্তোলন করেই অন্যত্র পাচারের সময় মানিকছড়িতে আটক করে সেনাবাহিনী। গুইমারা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত খাদ্য কর্মকর্তা জাকির হোসেন জানান, গত ১৫ জুন প্রকল্প চেয়ারম্যানরা স্ব স্ব গুচ্ছগ্রামের বরাদ্দকৃত খাদ্য শস্য বিতরণের জন্য উত্তোলন করে নিয়ে যায়।

তিনি জনান, গুইমারার চারটি গুচ্ছগ্রামের রেশনকার্ডধারির জন্য মে, এপ্রিল ও জুন এ তিন মাসের ১৭১.০৮মেট্রিক টন চাল ও ২৩৩.৬১৫মেট্রিক টন গম বরাদ্দ হয়। আটককৃত চালের ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না বলে দাবি করেন।

গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান,সেনাবাহিনী শনিবার আটককৃত চাল থানায় হস্তান্তর করেছে। এ ব্যাপারেকোন মামলা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে ওসি বলেন, আটককৃত চালের বৈধতার বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। এদিকে, স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, আটককৃত চাল থানা থেকে ছাড়িয়ে নিতে তোড়জোর চালাচ্ছে চাল পাচরকারিচক্র।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × five =

আরও পড়ুন