গোতাবায়া রাজাপাকসেকে আশ্রয় দেওয়ায় সিঙ্গাপুরেও প্রতিবাদ

fec-image

শ্রীলঙ্কার ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসেকে দেশে প্রবেশ করতে দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সিঙ্গাপুরের হং লিম পার্কের স্পিকার্স কর্নারে প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে।

শনিবার (১৬ জুলাই) এ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে দেখা গেছে বেশ কয়েকজনকে। স্পিকারস কর্নার সিঙ্গাপুরের একমাত্র জায়গা যেখানে অনুমতি ছাড়াই আইনগতভাবে প্রতিবাদ করা যায়।

২০২০ সালের সাধারণ নির্বাচনে অংশ নেওয়া পিপলস ভয়েসের (পিভি) সাবেক প্রার্থী প্রবু রামচন্দ্রন বলেন, খুব কম জনই এ বিষয়ে কথা বলছে। তিনি বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম যে গোতাবায়া রাজাপাকসেকে এখানে রেখে আমরা বাকি বিশ্ব এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে যে বার্তা পাঠাচ্ছি সে সম্পর্কে কাউকে এই বিষয়ে কথা বলা উচিত’।

শ্রীলঙ্কার পাশাপাশি মালদ্বীপসহ আরও কয়েকটি দেশে রাজাপাকসের বিরুদ্ধে লঙ্কানদের বিক্ষোভ করতে দেখা গেছে।

তিনি বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সিঙ্গাপুরে পৌঁছানোর কিছুক্ষণ পরে, পুলিশ আইনভঙ্গের পরিণতি সম্পর্কে যে কোনো বিক্ষোভকারীকে সতর্ক করে দিয়েছে। দেশটির পুলিশ জানায়, কেউ বেআইনি জনসভায় অংশগ্রহণ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, রাজাপাকসে সিঙ্গাপুরে প্রবেশের সময় শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট ছিলেন এবং ব্যক্তিগত সফরের জন্য তাকে ভিসা প্রদান করা হয়েছে।

স্ট্রেইটস টাইমস সিঙ্গাপুরে প্রায় ২০ জন শ্রীলঙ্কার নাগরিক ও সিঙ্গাপুরবাসী বা দেশটির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে, সিঙ্গাপুর সরকারের এমন সিদ্ধান্তের জন্য তাদের মতামত জানতে চাইলে কেউ মন্তব্য করতে চাননি।

দক্ষিণ এশীয় বংশোদ্ভূত সিঙ্গাপুরের একজন আইনজীবী, যিনি নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ করে বলেছেন গোতাবায়া রাজাপাকসেকে দেশটিতে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ায় সিঙ্গাপুর সরকারের সিদ্ধান্তে তিনি ‘মর্মাহত’ হয়েছেন। তিনি আরও বলেন যে কোনো শ্রীলঙ্কান, সে তামিল হোক বা না হোক, গোতাবায়া সিঙ্গাপুরে আমাদের আশপাশে রয়েছেন এটি জেনে কষ্ট পাবেন।

সিঙ্গাপুর গোতাবায়া রাজাপাকসেকে আশ্রয় দেওয়ার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রতিবাদ জানাচ্ছেন লঙ্কানরা।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১২ জুলাই) মধ্যরাতে তিনি দেশ ত্যাগ করেন। ৭৩ বছর বয়সী গোতাবায়া রাজাপাকসে মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে পৌঁছান রাত ৩টার দিকে। এরপর সেখান থেকে সিঙ্গাপুর চলে যান। মালদ্বীপ থেকে সৌদি এয়ারলাইনসের একটি প্লেনে সিঙ্গাপুরে পৌঁছান গোতাবায়া। সঙ্গে রয়েছেন স্ত্রী ও দুই দেহরক্ষী।

সিঙ্গাপুরের সরকার জানিয়েছে, একটি ব্যক্তিগত ভিসায় তাকে ভ্রমণের সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তবে গোতাবায়া সিঙ্গাপুরেই থাকবেন নাকি অন্য কোথাও যাবেন সে বিষয়টি এখনো পরিষ্কার নয়। যদিও তার পরবর্তী গন্তব্য সৌদি আরব বলে শোনা যাচ্ছে।

সূত্র: দ্য স্ট্রেইটস টাইমস

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আশ্রয়, গোতাবায়া রাজাপাকসে, শ্রীলঙ্কা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 4 =

আরও পড়ুন