ঘুমধুমে রাতের আধারে বিষ প্রয়োগ করে পুকুরের মাছ নিধন

fec-image

নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে পুকুরে গ্যাস বড়ি (এক ধরনের বিষ) দিয়ে মাছ নিধন করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার (৩০ জুন) রাতে ঘুমধুম জলপাইতলী গ্রামের বাদশা মিয়ার পুকুরে এ ঘটনা ঘটানো হয়। এতে ওই মাছ চাষির ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। সম্প্রতি ওই এলাকায় দুর্বৃত্তরা রাতের আধারে মাছ নিধনসহ ফসলের ক্ষেত কেটে নষ্ট করে দিচ্ছে।

ক্ষতিগ্রস্ত বাদশা মিয়া বলেন, ‘ধার-দেনা করে নিজের জলাকারের পুকুরে বাণিজ্যিকভাবে মাছ চাষ করেছিলাম। রেনু পোনা, খাদ্য ক্রয়সহ এ পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার টাকা খরচ করেছি। আশা ছিল আর কিছুদিন পরে মাছ বিক্রির মাধ্যমে অর্ধ লক্ষাধিক টাকা আসবে। কিন্ত বুধবার রাতে কোন এক সময় কে বা কারা গ্যাস বড়ি দিয়ে পুকুরের সব মাছ মেরে দিয়েছে। পুকুরে নেমে গ্যাস বড়ির বোতলও পাওয়া গেছে। কে এমন ক্ষতি করেছে তা আমি দেখিনি। ফলে কারও বিরুদ্ধে আমার অভিযোগও নেই। এখন কী করে ধার-দেনা পরিশোধ করবো।’ কথা বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

প্রতিবেশী শহিদুল ইসলাম সাগর সাগর জানান, বাদশা মিয়া তাদের গ্রামের মধ্যে একজন পরিশ্রমী ও সৎ মানুষ। এমন সহজ সরল মানুষের কেউ ক্ষতি করতে পারে এটা ভাবাও যায় না। পুকুরের মাছ দেখে এটা এক ধরনের নৃশংসতা মনে হয়েছে।

ঘুমধুমের সুশীল সমাজ মনে করছে অপরাধীরা অপরাধ করে পার পেয়ে যাচ্ছে, এ কারণে এ ধরনের অপরাধ বেড়েই চলেছে। অপরাধীদের খুঁজে বের করে শাস্তির ব্যবস্থা না করতে পারলে, তারা আরও বড় ধরনের অপরাধ সংগঠিত করবে বলে আশঙ্কা করছে তারা।

ঘুমধুম ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বলেন, ‘গ্যাস বড়ি দিয়ে মাছ নিধনের ব্যাপারে শুনে দেখতে গিয়েছিলাম। এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ঘুমধুম, পুকুর, বিষ প্রয়োগ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 5 =

আরও পড়ুন