ঘুমধুম সীমান্তে মাইন বিষ্ফোরণে আবারও রোহিঙ্গা নিহত

fec-image

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ৩৮-৩৯ নম্বর পিলার এলাকায় ২০দিনের ব্যবধানে আরো এক রোহিঙ্গা ব্যক্তি মাইন বিষ্ফোরণে নিহত হয়েছে।

সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু থোয়াইঙ্গাঝিরি এলাকা থেকে বিজিবির সহায়তায় আব্দুল মজিদ নামে ওই রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ব্যক্তি উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প ডি-১ এ অবস্থানরত আবদুল মালেকের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম বাইশফাড়ি সীমান্তের জিরো পয়েন্টের প্রায় একশত গজ অভ্যন্তরে সকাল ৯টার দিকে বিকট একটি শব্দ শুনতে পায় বিজিবি। বিজিবির টহলদল দুপুরে নো ম্যান্স ল্যান্ড এলাকায় একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে। পরে দুপুর ২টার দিকে পুলিশের সহায়তায় লাশটি উদ্ধার করে ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়িতে আনা হয়। বিকালে লাশের ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর ইমন চৌধুরী বলেন- বিজিবির মাধ্যমে খবর পেয়ে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজারে পাঠানো হয়েছে। দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এদিকে ঘুমধুম বিজিবি নিয়ন্ত্রিত কক্সবাজার ৩৪বিজিবির অধিনায়ক আলী হায়দার আজাদ মাইন বিষ্ফোরণে রোহিঙ্গার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন ঘটনাস্থলের ওই প্রান্তে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষীর সাথে তাৎক্ষনিক যোগাযোগ করা হয়েছে। কিন্তু নো ম্যান্স ল্যান্ডে মাইন বিষ্ফোরণের বিষয়টি তারা অস্বীকার করেছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: নিহত, মাইন বিষ্ফোরণ, মিয়ানমার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + 10 =

আরও পড়ুন