চকরিয়ায় অভিযান চালিয়ে ২১ হাজার ৫শত টাকা অর্থদণ্ড

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ার বিভিন্ন জায়গায় করোনাভাইরাসের সংক্রমন প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ও পবিত্র মাহে রমজানে বাজার মনিটরিংয়ের জন্য মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় জনগণকে সচেতন করার পাশাপাশি আকস্মিক ভাবে ক্রেতা সেজে মার্কেটে হাজির হন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সৈয়দ সামসুল তাবরীজ।

মার্কেটের ভেতরে দোকান খুলে মালামাল বিক্রি করার দায়ে ও বিভিন্ন অপরাধে আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ৯টি মামলায় ২১ হাজার ৫শত টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

বুধবার (১৩মে) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ সামসুল তাবরীজ অভিযান পরিচালনা করে এ অর্থদণ্ড প্রদান করেন।

অভিযানের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ সামসুল তাবরীজ বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রাদুর্ভাব থেকে আত্মরক্ষার্থে উপজেলার প্রত্যেকটি এলাকায় জনসচেতনতা বৃদ্ধি, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, বাজার মনিটরিং কার্যক্রম এবং পবিত্র রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখতে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও চকরিয়া পৌরশহরের বিভিন্ন মার্কেট এলাকায় মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালনা করা হয়।

তিনি আরও বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে সরকারের নির্দেশ না মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখায় অভিযান পরিচালনা করে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে গণজমায়েত ও আড্ডা ছত্রভঙ্গ করা হয় চকরিয়া পৌরসভার চিরিংগা কাচাবাজার, হালকাকারা, কোচপাড়া, মগবাজার, মৌলভীকুম বাজার এলাকায়।

এছাড়াও উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ডুলাহাজারা বাজার, মালুমঘাট পুলিশ ফাড়ি স্টেশন ও মালুমঘাট স্মার্ট ফ্যাশন দোকানে ক্রেতা সেজে অভিযান পরিচালনা করা হয়। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করায় বিভিন্ন অপরাধে আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ৯টি মামলায় ২১হাজার ৫শত টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। দেশের চলমান কোভিড-১৯ করোনা পরিস্থিতিতে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালতের নিয়মিত এ অভিযান অব্যহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 1 =

আরও পড়ুন