চকরিয়ায় আলোচিত ব্যবসায়ী লতিফ উল্লাহ হত্যা মামলার সন্দেহভাজন আসামি গ্রেফতার

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরশহরের সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় সড়কে নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দুর্বৃত্তদের হাতে খুনের শিকার ব্যবসায়ী লতিফ উল্লাহ হত্যামামলার সন্দেহভাজন এক আসামি চট্টগ্রামের পটিয়ায় গ্রেফতার হয়েছেন।

গতকাল শনিবার (১৫ জানুয়ারি) পটিয়া মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হুমায়ুন কবির খোন্দকারের নির্দেশে পরিদর্শক মো. সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে অভিযানে ৫০০ পিস ইয়াবা বড়িসহ আসামি মিজানুর রহমানকে (৪২) গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মিজানুর রহমান ঝালকাটি জেলার সদর উপজেলার বালকদিয়া বিনয়কাটি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের মৃত জলিল আকনের ছেলে।

গতকাল রাতে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো.জুয়েল ইসলাম।
তিনি বলেন, ব্যবসায়ী লতিফ উল্লাহর দোকানে ঢুকে হামলার আগে একটি মোবাইল থেকে মাল কেনার অজুহাতে বাসা থেকে ঢেকে আনা হয়। এরপর মাল কেনা শেষে ক্রেতা পরিচয়ধারী ওই ব্যক্তি লেনদেন শেষ করে দোকান থেকে বের হবার মুর্হুতে অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তরা হানা দিয়ে দোকানের ক্যাশ থেকে টাকা লুটের চেষ্টা করে। এসময় বাঁধা দিতে গেলে দুর্বৃত্তরা ব্যবসায়ী লতিফ উল্লাহকে কুপিয়ে হত্যা করে।

তিনি আরও বলেন, হত্যাকান্ডের পর থেকে চকরিয়া থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনার আগে ব্যবসায়ী লতিফ উল্লাহকে ঢেকে নেয়া মোবাইল ফোনের সুত্রধরে ঘাতককে গ্রেফতারে অভিযান তৎপরতা শুরু করেন। এরইমধ্যে গতকাল শনিবার চট্টগ্রামের পটিয়ায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের হাতে মাদকসহ গ্রেফতার হন সেই মোবাইলের ফোনের ব্যক্তি মিজান।

ওসি তদন্ত জুয়েল ইসলাম বলেন, বর্তমানে আটক মিজান পটিয়া মাদকদ্রব্য অধিপ্তরের অধীনে আছেন। তাকে আমরা ব্যবসায়ী লতিফ উল্লাহ হত্যা মামলায় সন্দেহভাজন আসামি দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে আজ (রবিবার) গ্রেফতারের আবেদন জানাবো। বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে তাকে চকরিয়া থানায় এসে মামলার অধিকতর তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। প্রয়োজনে আমরা আদালতের কাছে রিমান্ডেরও আবেদন জানাবো।

উল্লেখ্য গত ৩ জানুয়ানরি সোমবার রাত সাড়ে দশটার দিকে চকরিয়া পৌরশহরের ২নং ওয়ার্ডের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় সড়কে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে দুর্বৃত্তরা বিকাশের এজেন্ট মোহাম্মদ লতিফ উল্লাহকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের টাকাও লুট করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

নিহত লতিফ উল্লাহ লোহাগাড়া উপজেলার আধুনগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সুফী পাড়ার মৃত ইলিয়াছ সওদাগরের ছেলে ও চকরিয়া ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শরাফত উল্লাহ’র ছোট ভাই।

স্থানীয়রা জানান, চকরিয়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় সড়কের পাশে লতিফ উল্লাহর মালিকাধীন কোমল পানীয়সহ বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সোমবার রাত সাড়ে দশটার দিকে ব্যবসার কাজ সেরে দোকান বন্ধ করার সময় ৩ থেকে ৪ জনের একদল দুর্বৃত্ত ক্রেতা সেজে পন্য কেনার অজুহাতে এসে নগদ টাকা ও বিকাশের মোবাইল লুটে নিয়ে লতিফ উল্লাহকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। চকরিয়া পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে হত্যায় ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার, চকরিয়া, লতিফ উল্লাহ হত্যা মামলা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen − 16 =

আরও পড়ুন