চকরিয়ায় বনবিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আ’লীগের অফিস ভাংচুরের অভিযোগ

fec-image

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের আওতাধীন ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের ডুলাহাজারা বিটের রিজার্ভ বনভুমি এলাকায় নির্মিত ডুলাহাজারা এক নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে খোদ বনবিট কর্মকর্তা ইলিয়াছের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরের দিকে উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের মালুমঘাটস্থ রিংভং এলাকায় এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের ডুলাহাজারা বিটের মালুমঘাট রিংভং দক্ষিণ পাহাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সীমানা সংলগ্ন এলাকায় ডুলাহাজারা এক নম্বর ওয়ার্ড আ:লীগের কার্যালয় নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে দলীয় অফিস হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার দুপুর ১১টার দিকে দলীয় অফিসে কোন নেতাকর্মী না ধাকার সুবাধে ডুলাহাজারা বিট কর্মকর্তা ইলিয়াছের নেতৃত্বে সঙ্গীয় বনকর্মীরা আকস্মিক ভাবে অফিসে ঢুকে ভাংচুর চালায়। এ সময় বনকর্মীরা অফিসের দরজার সামনে একটি কাঠের ছোট্ট প্রতিকী নৌকা নামিয়ে ফেলে। এবং অফিসের ভিতরে থাকা একটি এলইডি টিভি, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি মেঝেতে বিচ্ছিন্নভাবে ভাংচুর করে ফেলে রাখেন।

এছাড়াও অফিসের দেয়ালে টাঙ্গানো প্রধানমন্ত্রীর ছবি, চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সাংসদ জাফর আলম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর ছবি সম্বলিত কয়েকটি ব্যানার ছিড়ে মাটিতে ফেলে রেখে বনকর্মীরা অফিস থেকে তাড়াহুড়া করে বের হয়ে যান। খবর পেয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীরা ছুটে আসলে তারা পালিয়ে যান বলে নেতাকর্মীরা জানায়।

ডুলাহাজারা এক নম্বর ওয়ার্ড আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ মোহাম্মদ ফোরকান জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলী আহমদের কাছে সরকারি জমি জবর দখলের অভিযোগ নিয়ে একটি নোটিশ দিতে আসেন ডুলাহাজারা বন-বিভাগের বনবিট কর্মকর্তা মো: ইলিয়াছ হোসেন। ওই সময় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের অফিসটি খোলা ছিল। তবে অফিসে দলীয় কোন নেতাকর্মীরা ছিল না। অফিসে কোন লোকজন না পেয়ে হঠাৎ বিট কর্মকর্তা ইলিয়াছ তার সঙ্গীয় এফজি আব্দুল কাদের, সাইদুল আ:লীগের দলীয় অফিসে ঢুকে নৌকা, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও ছবি ভাংচুর করে দ্রুত চলে যান বলে স্থানীয়রা আমাকে অবহিত করলে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে অফিসের ভেতরে ভাংচুরের দৃশ্যপট দেখি। অফিস ভাংচুরের বিষয়টি চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সাংসদ আলহাজ জাফর আলম, উপজেলা আ:লীগ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দকে অবহিত করি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ডুলাহাজারা বনবিট কর্মকর্তা মো: ইলিয়াছ হোছাইনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, রিংভং দক্ষিণ পাহাড় এলাকায় বনবিভাগের অবৈধ দখলদার ৯জনের বিরুদ্ধে আজকে নোটিশ ইস্যু করা হয়। সকালে বনকর্মী আব্দুল কাদের ও সাইদুল ইসলামকে পাঠিয়ে ওই দখলদারিত্ব লোকজনকে নোটিশ দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগের অফিস ভাংচুরের ঘটনার বিষয়ে আমি কিছু জানি না এবং ঘটনাস্থলে যাওয়া হয়নি। এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছু না। আমি যেহেতু প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী কেন আমি দলীয় অফিস ভাংচুর করবো এটা আমার বোধগম্য হচ্ছেনা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন