চকরিয়ায় বিভিন্ন জনপদে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ বিষাক্ত মাছ ‘পিরানহা’

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ায় পৌরশহরের মাছ বাজারে ও উপজেলার বিভিন্ন জনপদে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ বিষাক্ত মাছ ‘পিরানহা’। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে ও সাধারণ মানুষদের ধোকা দিয়ে লাল রুপচাঁদা মাছ পরিচয় দিয়ে নিষিদ্ধ এসব মাছ বিক্রয় করছে বলে জানা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকার ঘোষিত নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ডোবা বা পুকুরে পিরানহার উৎপাদন ও চাষ করা হচ্ছে। বিক্রির উপযুক্ত হলে এসব নিষিদ্ধ মাছ বাজারে মাছের আড়তদারের কাছে পাঠানো হয়। এ রাক্ষুসে পিরানহা বাজার ভেদে ১৫০ থেকে ২০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। আর এ মাছের ক্রেতারা হচ্ছেন দেশের সাধারণ ও নিম্ন ম্যধ্যবিত্তরা। দেশি বা থাই রুপচাঁদা অথবা ‘সামুদ্রিক লাল চান্দা’ নামে পিরানহা বিক্রি করছে বিভিন্ন বাজারে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার বিভিন্ন জনপদে পিরানহা মাছের সরবরাহ প্রতিটি বাজারে কম বেশি রয়েছে। নিষিদ্ধ এ পিরানহা মাছ সম্পর্কে গ্রামের সাধারণ মানুষরা কিছুই জানেন না। তবে এ মাছ পৌরশহরের কাঁচা বাজার, নাথপাড়া রাস্তার মাথায় নতুনভাবে গড়ে উঠা বাজার, মগবাজার উপজেলার চৌয়ার ফাঁড়ি বাজার, বদরখালী বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন বাজারে নিত্যদিন কিছু অসাধু মাছ বিক্রেতারা দেদারছে বিক্রয় করে যাচ্ছে। এতে প্রশাসনের মৎস্য অধিদপ্তরের নিরব ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

চিরিংগা পৌরশহরের নাথপাড়াস্থ রাস্তার মাথায় মাছ কিনতে আসেন রফিক উদ্দিন নামের এক ক্রেতা। তিনি পেশায় একজন কৃষক। তিনি বলেন, পিরানহা মাছ দেখতে অনেকটা রুপচাঁদার মতো। মাছ ব্যবসায়ীরাও বলছে সামুদ্রিক মাছ। এ মাছের দামও সস্তা। প্রতি কেজি বিক্রি করেছে মাত্র ২০০ টাকা । তাই এক কেজি এই মাছ কিনেছি। তবে তিনি জানতেন না এটা বিষাক্ত প্রজাতির মাছ। পরে তিনি জানতে পেরে নিষিদ্ধ ও বিষাক্ত ক্রয়কৃত পিরানহা মাছগুলো ফেরত দেন।

বাজারের কয়েকজন মাছ বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিগত কয়েক মাস ধরে নিষিদ্ধ এ পিরানহা মাছ বিক্রিয় করা হচ্ছে। দাম কম বলে নিম্ন আয়ের মানুষ এসব মাছ কিনে নিচ্ছেন। কোন আড়ত থেকে এসব মাছ নিয়ে এনেছেন জানতে চাইলে বলেন চিরিংগা কাঁচাবাজর ও বদরখালীর বিভিন্ন মাছের আড়ত থেকে তারা এই মাছগুলো কিনে এনেছেন। তবে, পিরানহা মাছ খেলে বা বিক্রয় করলে কি হয় তা তাদের জানা নেই বলে জানান।

কয়েকজন বিক্রেতা জানান, পিরানহা মাছ বিক্রয়ে যে নিষেধ, তা তারা জানেন না। তবে আশপাশের মাছ বিক্রেতাসহ আরও অনেকেই বলেন, প্রতিদিনই বিভিন্ন বাজারে এই পিরানহা মাছ বিক্রিয় হচ্ছে। কম দাম হওয়ায় ও রূপচাঁদা মাছ মনে করে এই পিরানহা মাছ বাজার থেকে ক্রয় করে রান্না করেছেন অনেকেই।

স্থানীয় সচেতন মহলের মতে, এই মাছ শরীরের জন্য ক্ষতিকর হওয়ায় তা সরকার নিষিদ্ধ করেছে। কিন্তু দেশের অধিকাংশ লোকজন তা জানেন না। তাই নিষিদ্ধ এ মাছ বিক্রেতা ও অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 − two =

আরও পড়ুন