চকরিয়ায় মাজারের খাদেমসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলাস্থ কাকারা ইউনিয়নের হযরত শাহ ওমর মাজারের খাদেম মৌলভী ইদ্রিসসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে ওসমান সরওয়ার নামের এক ব্যক্তিকে মারধর ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে।

গেল ২ নভেম্বর দুপুরে উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে কাকারা ৫নম্বর ওয়ার্ডের খাদেম পাড়া এলাকার মৃত বদরুস ছমদের ছেলে ওসমান সরওয়ার বাদী হয়ে নালিশী অভিযোগ করলে তা আমলে নিয়ে মামলা হিসেবে রুজু করে। পরে মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য থানার ওসিকে নির্দেশ দেন আদালতের বিচারক।

আদালতে দায়েরকৃত নালিশী মামলার আসামীরা হলেন, কাকারা ইউনিয়নের খাদেম পাড়া এলাকার মাজার শরীফের খাদেম মৌলভী মোহাম্মদ ইদ্রিস, তার ভাই মোহাম্মদ ইব্রাহিম ও মোজাম্মেল হক।

এজাহারে বাদী ওসমান সরওয়ার দাবি করেছেন, তার পিতা মরহুম বদরুস ছমদ দীর্ঘদিন ধরে শাহ ওমর মাজারের খাদেম হিসেবে মাজারের রক্ষণাবেক্ষণ ও তদারকি করে আসছিল। বিগত ১৯৮৭ সালের ১৪মে তার পিতা মৃত্যু বরণ করেন। পিতার মৃত্যুর পরে উত্তরাধিকার সূত্রে মাজারে মৌলভী ইদ্রিসসহ তাহার ৫ভাই খাদেম হিসেবে যাবতীয় রক্ষণাবেক্ষণ ও তদারকি করিয়া আসছে।

মামলায় অভিযুক্তরা কয়েক বছর ধরে মাজারের হিসাব নিকাশ ও দায় দায়িত্ব পালন করে আসলেও পরবর্তী লোভের বশবর্তী হইয়া বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হয়। এরই আলোকে ২০১৬ সালে কাকারা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কসাই পাড়ার আমির হোসেনের পুত্র রুহুল কাদের নামের এক ব্যক্তিকে হত্যার ঘটনায় দায়ে মাজারের খাদেম মৌলভী ইদ্রিসের বিরুদ্ধে জি.আর ৩২৩/২০১৬ দায়ের করেন। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে মাজারের বালু উত্তোলনের কারণে বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০এর (চ) ধারায় অপরাধে মোবাইল কোর্ট মামলা নং ০১/২০২০ দায়ের করা হয়। অভিযুক্ত মাজারের খাদেম ইদ্রিস ও অপরাপর অভিযুক্তরা তাদের নানা কার্যকলাপ ও মাজারের পবিত্রতা নষ্ট করায় প্রতিবাদ করলে তারা পরস্পর যোগসাজসে মাজারের জিয়ারতের টাকা তছরুপসহ মাজারের পুকুর, পুকুরের মাছ, গাছপালা, জমির ফসল অন্যায় ভাবে আত্মসাত করতে থাকে। তাদের এহেন অন্যায় কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে আমাকে মারবে, কাটবে ও অপমান অপদস্থ করবে মর্মে হুমকি দেন।

মামলার এজাহারে তিনি আরও বলেন, ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রতিদিনের ন্যায় মাজারের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালনের জন্য মাজারে গেলে অভিযুক্তরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দেশি  ধারালো অস্ত্র, লোহার রড ও কাঠের বাটাম নিয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমণ করে। এসময় অভিযুক্তরা তাকে বারি মারলে মাটিতে পড়ে গেলে গলা চেপে ধরে হত্যার চেষ্টা করে। এছাড়াও তাদের হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে সর্বশরীরে এলোপাতাড়ি মারধর করে গুরুতর জখম করা হয় ওসমান সরওয়ারকে। এসময় তার কাছ থেকে মাজারে জিয়ারতের বিভিন্ন লোকের প্রদত্ত একলক্ষ পাঁচ হাজার টাকা লুটে নিয়ে যায় বলে দাবি করেছেন মামলার বাদী। ওইসময় তার শোর চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, আদালত থেকে মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। থানার উপপরিদর্শক (এস আই) মুজিবুর রহমানকে বিষয়টি সরেজমিন তদন্তের জন্য দায়িত্বে দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়ায়, মাজারের, মামলা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + seven =

আরও পড়ুন