চাকরি ছেড়ে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি হওয়ার আশায় দু’কুল হারালেন নরোত্তম দাশ

fec-image

দু’কুল হারালেন নরোত্তম দাশ বৈঞ্চব। ছিলেন সরকারি চাকুরীজীবী। খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হওয়ার আশায় চাকরি থেকে ইস্তফা দেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হতে পারেননি। কাউন্সিলে ছিটকে পড়েছেন নরোত্তম দাশ বৈঞ্চব।

নরোত্তম দাশ বৈঞ্চব পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে চাকরি করতেন। তিনি খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা সহকারী ছিলেন। তিনি গত ১৬ বছর ধরে চাকরি করছেন। তবে তার পদ পানছড়িতে থাকলেও সংযুক্তিতে ছিলেন খাগড়াছড়ি সদরে। তিনি চাকরীর পাশাপাশি যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন। চাকরি করেও তিনি দিব্যি রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে মাঠে ময়দানে সক্রিয় রয়েছেন। বর্তমানে খাগড়াছড়ি সদর শাখা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন।

সম্প্রতি খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হলে নরোত্তম দাশ বৈঞ্চব সভাপতি পদে প্রার্থী হন। গত ২৮ অক্টোবর সরকারি চাকরি থেকে ইস্তফা দেন এবং একই সাথে যুবলীগ থেকে পদত্যাগও করেন।

নরোত্তম বৈঞ্চব খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সভাপতি পদে প্রার্থী হয়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালান তিনি। ভোট চেয়ে পুরো শহরে নির্মিত হয় বিশাল তোড়ন। শুধু তাই নয়; পুরো উপজেলা জুড়ে পোস্টার সাটানো হয়েছে তার পক্ষে। শহর ও শহরতলীতে তার ব্যানার, প্লেকার্ড ও তোড়নে ছেয়ে যায়। কিন্তু ৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ছিটকে পড়েন নরোত্তম দাশ বৈঞ্চব।

তার পরিবর্তে সঞ্জিব ত্রিপুরা সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। তবে ভোটাভুটির পরিবর্তে সমঝোতার মাধ্যমে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে ভাগ্য নির্ধারণ হয়।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আওয়ামী লীগ, কাউন্সিল
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 15 =

আরও পড়ুন