নিউইয়র্কে জাতিসংঘের আদিবাসী বিষয়ক স্থায়ী ফোরামের ১৩তম অধিবেশন শুরু: চলবে ২৩মে পর্যন্ত

kk

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

জাতিসংঘের আদিবাসী বিষয়ক স্থায়ী ফোরামের ১৩তম অধিবেশন সোমবার(১২মে) যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের জাতিসংঘের সদর দপ্তরে উদ্বোধন করা হয়েছে। আগামী ২৩মে পর্ষন্ত এ অধিবেশন চলবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের মহাসচিব বান-কি-মুন এ অধিবেশনে আদিবাসীদের অংশগ্রহন এবং তাদের মতামত এই প্রক্রিয়াকে আরো সমৃদ্ধ করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন। তিনি জলবায়ু পরিবর্তন এবং পরিবেশ সংরক্ষনে বিশ্বব্যাপী আদিবাসীদের লোকায়ত জ্ঞান এবং তার অনুশীলন প্রথাকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে এই ক্ষেত্রে তাদের কেন্দ্রীয় ভুমিকাকে স্বীকৃতি প্রদানের জন্য আহবান জানিয়েছেন।

উদ্বোধনী অধিবেশনে জাতিসংঘের মহাসচিব বান-কি-মুন ছাড়াও জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রেসিডেন্ট জন এশে, অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের প্রেসিডেন্ট মাটিন সাজদিক, বিভিন্ন সদস্য রাষ্ট্রের প্রতিনিধি, জাতিসংঘের বিশেষায়িত সংস্থার প্রতিনিধি,বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রায় তিন শতাধিক আদিবাসী প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

জাতিসংঘের আদিবাসী বিষয়ক এই সম্মেলনে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ আশা প্রকাশ করেছেন জলবায়ু পরিবর্তন এবং ২০১৫ পরবর্তী বিশ্ব উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারনে আদিবাসীদের ‘সমষ্টিগত অধিকারের ধারণা,তাদের ‘চিরায়ত জ্ঞান’এই প্রক্রিয়ায় একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে কাজ করবে।

আদিবাসী বিষয়ক চলতি এই অধিবেশন মে মাসের ১২ থেকে ২৩ তারিখ পর্যন্ত চলবে। এই বছরের প্রতিপাদ্য বিষয় “সুশাসন” ছাড়াও এই বছরের সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠিতব্য জাতিসংঘের আদিবাসী বিষয়ক বিশ্ব সম্মেলন বিষয়েও আলোচনা হবে এ অধিবেশনে। এছাড়া দারিদ্র মুক্ত সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারনে ২০১৫ পরবর্তী স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন রোডম্যাপ প্রনয়নের বিষয়াবলীও আলোচনায় স্থান পাবে বলে জানা গেছে।

সাধারন পরিষদের প্রেসিডেন্ট জন এশে তার বক্তব্য বলেন, সহস্রাব্ধ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আদিবাসীরা এখনো নির্ধারিত লক্ষ্য থেকে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পিছিয়ে আছে।এ সত্যটুকু সবাইকে স্বীকার করতে হবে।

UN-Pic

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনায় অংশ নিয়ে অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের প্রেসিডেন্ট মার্টিন সাজদিক বলেন, এ ফোরামের কাজের মাধ্যমে আদিবাসীদের এবং সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সরকারের সাথে আস্থার পরিবেশ সৃষ্টি হবে এবং পারস্পরিক সম্পর্কের উন্নয়ন ঘটবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের আদিবাসী বিষয়ক স্থায়ী ফোরামের নতুন চেয়ারপারসন হিসেবে আলাস্কার ডালে সাম্বো ডোরোকে মনোনীত করা হয়।

এ অধিবেশনে চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায় ফোরামের এক্সপার্ট সদস্য হিসেবে উপস্থিত রয়েছেন। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে এ অধিবেশনে যোগদান করেছেন মংগল কুমার চাকমা, বিনোতা ময় ধামাই, উজানা লারমা, দীপোজ্জল খীসা, বিপাশা চাকমা, হানা শামস আহমেদ,পল্লব চাকমা প্রমূখ।

উল্লেখ্য,উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর পর জাতিসংঘের মহাসচিব বান-কি-মুন আদিবাসী নেতৃবৃন্দের সাথে এক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে এশিয়া আদিবাসীদের পক্ষ থেকে রাজা দেবাশীষ রায় এবং বিনোতা ময় ধামাই উপস্থিত ছিলেন। এসময় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে বিনোতা ময় ধামাই মহাসচিব বান-কি-মুনকে শুভেচ্ছা স্বরূপ ‘রিসা’/হাদি’ উপহার দেন। সূত্র: হিলবিডিডটকম

এ বিষয়ে আরো পড়ুন:

বাংলাদেশে আদিবাসী বিতর্ক

আদিবাসী বিষয়ক আন্তর্জাতিক আইনের ভুল ব্যাখ্যা ও অপপ্রয়োগ

বাংলাদেশের আদিবাসী সঙ্কট

আদিবাসী বা ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী বিতর্ক

বাংলাদেশ নাগরিকের রাষ্ট্র কোনো আদিবাসীর নয়

বাংলাদেশে আদিবাসী নিয়ে বাড়াবাড়ি ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আদিবাসী, আদিবাসীদের, জাতিসংঘ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 + five =

আরও পড়ুন