টানা বর্ষণে বান্দরবানে পাহাড় ধসের শঙ্কা

fec-image

মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে টানা ভারী বর্ষণে বান্দরবানে পাহাড় ধসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। গত দুইদিনে বৃষ্টিতে রাস্তাঘাটে পানি জমে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে লোকজন। পাহাড় ধসের ঝুকিতে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি। পাহাড়ের পাদদেশে ঝুকিপূর্ন বসতিগুলো ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে অবস্থান নিতেও করা হয়নি কোনো মাইকিং।

জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার থেকে বান্দরবান জেলা শহরসহ আশপাশের এলাকাগুলোতে টানা ভারী বর্ষণ অব্যাহত রয়েছে। তবে রোববার সকাল নয়টার পর থেকে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ অনেকগুন বেড়ে গেছে। তার আগে গত দুদিনে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিলো ৪১ মিলিমিটার। বৃষ্টিতে ইতিমধ্যে বান্দরবান পৌরসভার বনরুপা পাড়া, কালাঘাটা, ইসলামপুর, কাসেমপাড়া, হাফেজঘোনা, বাসস্ট্যান্ড এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটছে। এছাড়াও বান্দরবান-কেরানীহাট সড়ক, রুমা, থানচি, রোয়াংছড়ি, লামা-সূয়ালক রুটের অনেকস্থানে পাহাড় ধসে রাস্তায় মাটি জমে গেছে। রাস্তায় পানি জমে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে পৌর এলাকার অভ্যন্তরিন বিভিন্ন সড়কে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে লোকজন।

বান্দরবানের মৃত্তিকা ও পানি সংরক্ষণ কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মাহাবুবুল ইসলাম বলেন, গত দু’দিনে বৃষ্টিপাতের পরিমানটা কম ছিলো। তবে রোববার সকাল নয়টার পর থেকেই ভারী বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। বৃষ্টির লক্ষণ খুব একটা ভালো মনে হচ্ছেনা। এই ধারা অব্যাহত থাকায় পাহাড় ধসে প্রাণহানির শঙ্কা বাড়ছে। পাহাড় ধসের ঝুকিতে বসবাসকারীদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া দরকার। এই অঞ্চলে জুন-জুলাই মাসে বৃষ্টিপাতের পরিমানটা বেশি হয়।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বলেন, ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে দুর্ঘটনার শঙ্কা তৈরি হচ্ছে। ঝুকিপূর্ণ স্থানগুলো থেকে লোকজনদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে বলা হচ্ছে। সরিয়ে নিতে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন এবং সংশ্লিষ্টরাও কাজ করছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় তৎপর রয়েছে প্রশাসন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পাহাড় ধস, বর্ষণ, বান্দরবান
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × two =

আরও পড়ুন