টিভি দেখতে দেখতে ঘুমিয়ে যান? জেনে নিন কী ক্ষতি ডেকে আনছেন

fec-image

রাতে আপনার প্রিয় সিরিজের অনেকগুলো পর্ব দেখতে ইচ্ছা হতেই পারে। কিন্তু এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য যে হুমকি হতে পারে তা কি জানেন? কারও কারও ক্ষেত্রে ঘুমের জন্য শান্ত পরিবেশ লাগে, কেউ আবার টিভির শব্দের ভেতরেও ঘুমিয়ে পড়তে পারেন। কিন্তু, টিভি চালু রেখে ঘুমানো কি সত্যিই ঠিক? আমাদের দেশে অনেকেরই ঘুমানোর আগে পর্দার দিকে তাকানোর অভ্যাস আছে। গবেষণা অনুসারে, ঘুমানোর সময় টিভি দেখা ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায় এবং ওজন বাড়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়।

১. গবেষণা কী বলছে
শিকাগোর নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ মেডিসিনের গবেষকরা ২০২২ সালে করা একটি গবেষণার উল্লেখ করে। ৬৩ থেকে ৮৪ বছর বয়সী ৫৫০ জনেরও বেশি স্বেচ্ছাসেবককে বিছানায় ঘড়ি পরতে বলা হয়েছিল যাতে গবেষকরা পরিবেষ্টিত আলোর পরিমাণ নিরীক্ষণ করতে পারেন। কীভাবে এটি তাদের স্বাস্থ্যকে প্রভাবিত করে সেটি দেখতে চেয়েছিলেন। সমীক্ষা অনুসারে, যারা ঘরে সামান্য পরিবেষ্টিত আলো নিয়েও ঘুমান তাদের মধ্যে ডায়াবেটিস, স্থূলতা এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি বেশি ছিল।

তারা আবিষ্কার করেছে যে, যারা টিভি বা এমনকী স্মার্টফোন থেকে কম আলোতে ঘুমায় তাদের পরের দিন সকালে ইনসুলিন প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি ছিল, যা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে।

২. ​টিভি পর্দার আলো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে
রাতে আলো জ্বালিয়ে ঘুমালে তা মেলাটোনিনের মাত্রা কমিয়ে দেয়, যা ঘুম নষ্ট করে এবং ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি বাড়ায়। কেউ কেউ হয়তো ভাবছেন, ‌‘এটি স্বাস্থ্যের জন্য এত খারাপ কেন?’ কারণ হৃদরোগের তিনটি প্রধান ঝুঁকির কারণ হলো অত্যধিক রক্তচাপ, ডায়াবেটিস এবং স্থূলতা।

​৩. কীভাবে নীল আলো সার্কাডিয়ান রিদমকে প্রভাবিত করে?
কৃত্রিম নীল আলোর সংস্পর্শে এলে মেলাটোনিন দমন করা হয়, যেমন আপনার টিভি থেকে যেটি আসে। যখন আপনি টিভির দিকে তাকিয়ে থাকেন তখন আপনার ঘুমাতে যাওয়া কঠিন হতে পারে। এই কারণে, যারা অনিদ্রায় ভুগছেন তাদের শরীরকে ঘুমের জন্য প্রস্তুত করতে সাহায্য করার জন্য উজ্জ্বল আলোর সংস্পর্শ কমিয়ে আনার পরামর্শ দেওয়া হয়। ঘুম খারাপ হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে থাকে এবং শরীরকে দুর্বল করে দেয়।

৪. মনের ওপর স্ক্রিন টাইমের প্রভাব
অল্পবয়সীরা ঘুমিয়ে পড়ার আগে টিভিতে যা দেখছিল তা নিয়েও দুঃস্বপ্ন দেখতে পারে। এর ফলে ঘুমের মান খারাপ হতে পারে এবং পরের দিন সকালে মেজাজ খারাপ এবং ক্লান্তির দেখা দিতে পারে। টিভি দেখার সময় ঘুমিয়ে পড়লে আমাদের বেশিরভাগেরেই শোয়ার ধরন ঠিক থাকে না। এর ফলে সকালে ফ্রোজেন শোল্ডার বা পেশীত টান পড়ার মতো সমস্যা হতে পারে।

৫. ভালো ঘুমের জন্য যা করবেন
জানলেন তো, টিভি দেখতে দেখতে ঘুমারে কী ক্ষতি হয়! শব্দ আর স্ক্রিন টাইম ছাড়া ঘুমাতে যাওয়ার জন্য এই কারণগুলোই যথেষ্ট। ঘুমাতে যাওয়ার আগে আপনাকে অবশ্যই শান্ত হতে হবে এবং কিছুক্ষণ বিরতি নিতে হবে। ঘুমের মধ্যে তলিয়ে যাওয়ার আগে এক গ্লাস পানি পান করুন, প্রার্থনা করুন বা সারাদিনের ইতিবাচক ঘটনাগুলো লিখে রাখুন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: স্বাস্থ্য পরামর্শ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন