টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত নিহত

fec-image

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত দলের সদস্য ছলিম (৩৪) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র , ৬ রাউন্ড তাজা কার্তূজ, ৭ রাউন্ড কাতূর্জের খোসা, এক হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। পুলিশের দাবি তিনি একজন অস্ত্রধারী ডাকাত ছিলেন।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) ভোর রাতে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কেরুনতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশ্ববর্তী এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত মোঃ সেলিম প্রকাশ ছলিম ডাকাত চাকমারকূল এলাকার কাদের হোসেনের ছেলে। এএসআইসহ পুলিশের ৩ সদস্য আহত হয়েছে বলে দাবি পুলিশের।

পুলিশ জানায়, ২২ অক্টোবর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল অভিযান পরিচালনা করে হোয়াইক্যং ইউনিয়ন চাকমারকুল এলাকা থেকে ওই ব্যক্তিকে আটক করে। পরে তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, কেরুনতলী এলাকায় গোপন স্থানে মাদক ও অস্ত্র মজুদ রয়েছে।

তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ২৩ অক্টোবর রাত দেড়টার দিকে কেরুনতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকায় গোপন স্থানে লুকিয়ে রাখা মাদক ও অস্ত্র উদ্ধার করতে অভিযানে গেলে ওৎপেতে থাকা ছলিম ডাকাতেরর সহযোগী ও মাদক কারবারী অস্ত্রধারীরা পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষণ করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়।

উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে এসআই আরিফুর রহমান, কনেস্টেবল আব্দুর শুক্কুর ও মেহেদী আহত হয় এবং গুলিবিদ্ধ হয় মাদক কারবারী সেলিম প্রকাশ ছলিম ডাকাত (৩৪)।

এরপর পুলিশ সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। এদিকে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে দেশীয় তৈরী ১টি এলজি(অস্ত্র),৬ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ৭ রাউন্ড খালীখোসা ও ১হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়ছে পুলিশ।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, নিহত যুবক ডাকাত দলের একজন সক্রিয় সদস্য এবং মাদক কারবারে জড়িত। তিনি আরো বলেন, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথাও জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − 3 =

আরও পড়ুন