টেকনাফে রোহিঙ্গা স্বামী-স্ত্রী ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

fec-image

টেকনাফে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা ডাকাত দলের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত অভিযোগে স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছে। উক্ত ঘটনায় তিন পুলিশ আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে দেশীয় তৈরি ৩টি অস্ত্র ও ৮ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ১২ রাউন্ড গুলির খোসা।

পুলিশ সুত্র জানায়, নিহত দুইজন সম্পর্কে স্বামী-স্ত্রী। তারা হচ্ছে, হ্নীলার লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্প সি-ব্লকের মৃত কাদের হোসাইনের পুত্র দিল মোহাম্মদ (৩২), তার স্ত্রী জাহেদা (২৭)। শনিবার রাতে সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ থানা পুলিশের একটি দল লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকা থেকে দেশীয় তৈরী থ্রি কোয়াটার একটি অস্ত্রসহ ডাকাত দলের সাথে জড়িত জাহেদা ও দিল মোহাম্মদকে আটক করে। এরপর তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ২২ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে লেদা ২৪নং ক্যাম্প সি-ব্লক এলাকায় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করার জন্য অভিযানে গেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দলের সদস্যরা আটককৃত আসামীদের ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষণ করে। এতে পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে আটক দুই আসামি গুলিবিদ্ধ হয়।

এরপর তাদের দুই জনকে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে পৌছানোর পর দায়িত্বরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন – মাদক প্রতিরোধ, বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডে জড়িত সন্ত্রাসীদের দমন করার পাশাপাশি টেকনাফ উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য পুলিশ মাদক কারবারী,ডাকাত ও সন্ত্রাস দমনে অভিযান অব্যাহত রাখবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বন্দুকযুদ্ধ, রোহিঙ্গা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − two =

আরও পড়ুন