টেলরের রেকর্ডে বাংলাদেশের লক্ষ্য ৩৩১

ডেস্ক রিপোর্ট:

ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এখন রস টেলর। স্টিফেন ফ্লেমিংকে পেছনে ফেলে রানের চূড়ায় ওঠা এই ব্যাটসম্যানের রেকর্ডে বাংলাদেশের বিপক্ষে বড় সংগ্রহ দাঁড় করেছে কিউইরা। টেলর, হেনরি নিকোলস ও টম ল্যাথামের হাফসেঞ্চু্রিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে নিউজিল্যান্ড করেছে ৩৩০ রান।

৫০ ওভারের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের শীর্ষস্থানটা অনেকদিন ধরে রেখেছিলেন ফ্লেমিং। ডানেডিনে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে কিউইদের সাবেক অধিনায়ককে টপকে যেতে টেলরের দরকার ছিল ৫১ রান। বাংলাদেশের বিপক্ষে ৬৯ রানের ইনিংস খেলার পথে ফ্লেমিংয়ের ৮ হাজার ৭ রান টপকে যান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

টেলরের রেকর্ড গড়া ম্যাচে আলো ছড়িয়েছেন হেনরি নিকোলস ও কেন উইলিয়ামসনের বিশ্রামে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়া টম ল্যাথাম। দুজনই পূরণ করেছেন হাফসেঞ্চুরি। তাদের সঙ্গে শেষ দিকে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ও জিমি নিশাম ব্যাটে ঝড় তুললে ৩৩০ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় স্বাগতিকরা।

আগেই সিরিজ হারা বাংলাদেশ শেষ ম্যাচটি জয় দিয়ে রাঙিয়ে নেওয়ার মিশনে নেমেছে ডানেডিনে। যে মিশনের শুরুতে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। বল হাতে নিয়ে শুরুতে দলকে সাফল্যও এনে দেন কলিন মুনরোকে (৮) আউট করে। এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে এই ওপেনারকে ফেরান বাংলাদেশ অধিনায়ক।

উইলিয়ামসনের অনুপস্থিতিতে তিন নম্বরে নামা নিকোলসকে সঙ্গে নিয়ে দাঁড়িয়ে যান মার্টিন গাপটিল। আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান গাপটিলকে অবশ্য বেশিদূর যেতে দেননি মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তবে ২৯ রান করা গাপটিলের উইকেটে এই বোলারের চেয়ে বেশি কৃতিত্ব পাবেন তামিম ইকবাল। লং অনে চমৎকার এক ক্যাচ নেন বাংলাদেশ ওপেনার। বল তালুবন্দি করলেও তামিম ভারসাম্য রাখতে পারেননি, তাই সীমানায় পা লাগবে ভেবে বল উড়িয়ে মারেন শূন্যে, এরপর বাউন্ডারির ভেতরে এসে নেন চমৎকার এক ক্যাচ।

যদিও এই উৎসবটা স্থায়ী হতে দেননি নিকোলস ও টেলর। চমৎকার ব্যাটিংয়ে তৃতীয় উইকেটে গড়েন ৯২ রানের জুটি। হাফসেঞ্চুরি পূরণ করা নিকোলসকে ফেরান মেহেদী হাসান মিরাজ। কিউই ব্যাটসম্যান ৭৪ বলে করা তার ৬৪ রানের ইনিংসটি সাজান ৭ বাউন্ডারিতে।

নিকোলস আউট হলেও দলকে চাপে পড়তে দেননি টেলর ও ল্যাথাম। চতুর্থ উইকেট জুটিতে তারা যোগ করেন ৫৫ রান। রেকর্ড গড়া টেলরকে ফেরান রুবেল হোসেন। মাহমুদউল্লাহর হাতে ধরা পড়ার আগে এই ব্যাটসম্যান ৮২ বলে করেন ৬৯ রান। মোস্তাফিজুর রহমানের বলে আউট হওয়া ল্যাথাম ৫১ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় করেন ৫৯ রান।

তাদের গড়ে দেওয়া ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে নিশাম ও গ্র্যান্ডহোম ব্যাটে তোলেন ঝড়। নিশাম ২৪ বলে ৩ চার ২ ছক্কায় করেন ৩৭ রান। তার চেয়েও বেশি ভয়ঙ্কর ছিলেন গ্র্যান্ডহোম, ১৫ বলে তিনি অপরাজিত ছিলেন ৩৭ রানে। ঝড়ো ইনিংসটি তিনি সাজান ৪ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায়। আর মিচেল স্যান্টনার ৯ বলে অপরাজিত থাকেন ১৬ রানে।

কিউই ব্যাটসম্যানদের দাপটের দিনে সবচেয়ে ঝড় গেছে মোস্তাফিজের ওপর দিয়ে। এই পেসার ২ উইকেট পেলেও ১০ ওভারে খরচ করেছেন ৯৩ রান! ১টি করে উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি, সাইফউদ্দিন, মিরাজ ও রুবেল হোসেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two + 11 =

আরও পড়ুন