তিন মাস পর বাঁশ কর্তন ও পরিবহন শুরু

ট্রাক ভাড়া বাড়ায় বিপাকে রাঙামাটির বাঁশ ব্যবসায়ীরা

fec-image

দীর্ঘ তিন মাস নিষেধাজ্ঞার পর (২ সেপ্টেম্বর) আবার বাঁশ কর্তন ও পরিবহন শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাঙামাটি কাপ্তাই আপষ্ট্রিম জেটিঘাটে এমন চিত্র লক্ষ করা যায়। তবে ট্রাক ভাড়া বাড়ায় বিপাকে রাঙামাটির বাঁশ ব্যবসায়ীরা।

বন বিভাগের পক্ষ থেকে বাঁশের বংশ বিস্তার ও প্রজননের জন্য প্রতি বছরের জুন হতে আগস্ট এ তিন মাস সকল ধরনের বাঁশ কর্তন ও পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

বাঁশ ব্যবসায়ী আব্দু্ল মান্নান পার্বত্যনিউজকে বলেন, ২ সেপ্টেম্বর হতে বাঁশ পরিবহন চালু করা হলেও বিভিন্ন জটিলতা ও ট্রাক পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধি পাওয়ায় বাঁশ ব্যবসায়ী কার্যক্রম বন্ধ রাখে। গত বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) বাঁশ ব্যবসায়ী, ট্রাক মালিক এদের নিয়ে জেটিঘাট বাঁশ ব্যবসায়ী সমিতি কার্যালয়ে একটি জরুরি সভার মাধ্যমে বৃহস্পতিবার হতে পুনরায় বাঁশ পরিবহন চালু করা হয়।

আবুল কাশেম নামের একজন ব্যবসায়ী পার্বত্যনিউজকে বলেন, আগে এক ট্রাক বাঁশ বোঝাই করে ঢাকা নিতে ট্রাক ভাড়া লাগতো ৩৩ হাজার ৩৭০ টাকা। কিন্ত তেলের দাম অতিমাত্রায় বৃদ্ধি পাওয়ায় এখন ভাড়া নিচ্ছে ৪০ হাজার ৩৭০ টাকা। এতে বাঁশ ব্যবসায়ীর মাথায় হাত। বাঁশের চেয়ে পরিবহন মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে ব্যবসায়ীরা আগামীতে বাঁশ ব্যবসায় নিরুৎসাহিত হয়ে পথে বসার শঙ্কা প্রকাশ করছে বলে জানান তিনি।

বাঁশ ব্যবসায়ী প্রতিনিধি ফজল আলম ও নূরুল আলম বাটন পার্বত্যনিউজকে জানান, ক্ষতি পোষাতে না পারলে আগামীতে পার্বত্যঞ্চল হতে বাঁশ ব্যবসা চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। কোন ব্যবসায়ীরা লস দিয়ে ব্যবসা করবেনা। যার ফলে সরকার রাজস্ব হারাবে এবং পাশাপাশি ট্রাক পরিবনহন ও ব্যবসায়ীর ক্ষতি হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে।

কাপ্তাই জেটিঘাট বন শুল্ক পরীক্ষণ ফাঁড়ির স্টেশন কর্মকর্তা আনোয়ার হোসাইন পার্বত্যনিউজকে জানান, প্রতি বছরের ন্যায় পার্বত্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগ হতে জুন-আগস্ট মাস পর্যন্ত বাঁশ বংশ বিস্তারের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। যার ফলে এই তিন মাস সকল ধরনের বাঁশ পার্বত্য অঞ্চল হতে পরিবনহন বন্ধ থাকে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 − 12 =

আরও পড়ুন