তামিমের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ার কারণ জানালেন সাকিব

fec-image

বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকেই একসঙ্গে খেলেছেন তামিম ইকবাল এবং সাকিব আল হাসান। এরপর জাতীয় দলের জার্সিতেও খেলেছেন এক যুগেরও বেশি সময়। তবে গেল বছর সাকিব–তামিমের কথা না বলা নিয়ে খবরের শিরোনাম হয়। একসময় একই ফ্লাটে থাকলেও এখন কেউ কারও সঙ্গে কথা বলেন না। নিজেদের এমন দূরত্ব কিভাবে তৈরি হয়েছিল, তা নিয়ে মুখ খুলেছেন সাবেক টাইগার অধিনায়ক সাকিব।

ওটিটি প্ল্যাটফর্ম বঙ্গবিডিকে বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন সাকিব। সেখানে তিনি বলেন, ‘(দুজনের মধ্যে) কথা হতো না, এটা একদম ভুল কথা। আমাদের একসময় যে সম্পর্কটা ছিল, সারাক্ষণ একসঙ্গে থাকতাম, ওই সম্পর্কটা মাঝে অনেকদিন ধরেই ছিল না।’

নিজেদের বিয়ের পর জীবন পাল্টেছে দাবি করে সাকিব বলেন, ‘আমি বিয়ে করলাম। সে (তামিম) বিয়ে করল। দুজনের বাসা আলাদা, আলাদা জায়গায় থাকা– এভাবে (নিজেদের জন্য) সময়টা অনেক কমে যায়। স্বাভাবিকভাবেই ওই (আগের) নৈকট্যও ধীরে ধীরে কমতে থাকে। মানুষের আলাদা জীবন চলে আসে। আলাদা পারিবারিক জীবন। এই ব্যস্ততাগুলোর সঙ্গে ধীরে ধীরে সময়টাও পাল্টে যেতে শুরু করে।’

সাকিব আর বলেন, ‘তারপর যা হয়েছে, মাঠে দেখা হলে যখন কোনো প্রয়োজন হতো তখনই কথা হতো। এর থেকে খুব বেশি যে কথা বলার দরকারও ছিল আমার কাছে তা মনে হয় না।’

সাকিব–তামিমের পরস্পর কথা না বলার বিষয়টি গেল বছর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এক সাক্ষাৎকারে প্রথম সামনে আনেন। যা নিয়ে সাকিবের মন্তব্য, ‘পাপন ভাই বলার পর থেকে এই ব্যাপারটি আরও আলোচনায় চলে আসে। আমার মনে হয় ওটা বেশি সমস্যা তৈরি করেছে, এই সম্পর্কের ক্ষেত্রে কিংবা এমন পরিস্থিতি তৈরির জন্য।’

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন