তুমব্রু সীমান্তে গুলিতে আহত র‌্যাব সদস্য ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি

fec-image

মাদক কারবারিদের সঙ্গে গোলাগুলির ঘটনায় আহত র‌্যাব সদস্য সোহেল বড়ুয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) রাত আড়াইটার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল থেকে তাকে হেলিকপ্টারে ঢাকায় নেওয়া হয়।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) মোহাম্মদ আশিকুর রহমান বলেন, ‘রাত পৌনে ১০টার দিকে মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়া র‍্যাব সদস্য সোহেল বডুয়াকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসা হয়। তার রক্তক্ষরণ হচ্ছে। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা সাধ্যমতো তার চিকিৎসা চালিয়ে যান। কিন্তু রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাত আড়াইটার দিকে কক্সবাজার থেকে তাকে ঢাকায় নেওয়া হয়।’

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়াও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, গুলিবিদ্ধ সোহেল বড়ুয়া পুলিশ থেকে প্রেষণে র‍্যাবে যুক্ত হন। তিনি র‍্যাব-১৫ তে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের আকবরশাহ থানা এলাকায়। তার বাবার নাম অশোক কুমার বড়ুয়া। সোহেল দুই সন্তানের জনক।

এর আগে সোমবার দিবাগত রাতে মিয়ানমার সীমান্তে মাদকবিরোধী অভিযানে গেলে মাদক কারবারিদের হামলায় এই র‌্যাব সদস্য গুরুতর আহত হন। তবে এ বিষয়ে পুলিশ ও র‍্যাবের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এ ছাড়া স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, এ ঘটনায় আরও কয়েকজন হতাহত হয়েছেন।

এদিকে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বান্দরবানের তমব্রু সীমান্তে মাদক চোরাচালানিদের সঙ্গে সংঘর্ষে ডিজিএফআইয়ের এক কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। এ সময় র‌্যাবের আরেক সদস্য গুরুতর আহত হন। র‌্যাব-ডিজিএফআইয়ে যৌথ অভিযান চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংঘর্ষ চলাকালে মাদক চোরাচালানিদের গুলিতে দায়িত্বরত অবস্থায় ডিজিএফআইয়ের ওই কর্মকর্তা (বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর কর্মকর্তা) দেশের জন্য আত্মত্যাগ করে শহীদ হন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: গুলি, ঢাকা মেডিকেল, তুমব্রু
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 + three =

আরও পড়ুন