দীঘিনালায় ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল কিশোরী

fec-image

দীঘিনালা উপজেলার জামতলী বাঙ্গালীপাড়ায় একটি বাল্যবিবাহ সংঘটিত হচ্ছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে ওই বিয়ে বাড়ীতে হাজির হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং নির্বাহী হাকিম ফাহমিদা মুস্তফা। পরে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বাল্যবিবাহটি বন্ধ করেন। পরে ১৪ বছরের কিশোরী বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পান।

জানাযায়, দীঘিনালা উপজেলার জামতলী বাঙ্গালীপাড়া এলাকায় একটি বাল্যবিবাহ সংঘটিত হচ্ছে এমন সংবাদ পান, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট থেকে। পরে সেখানে বাল্যবিবাহ সংঘটিত হওয়ার আলামত লক্ষ করতে পারেন। পরে উপস্থিত এলাকার হেডম্যানসহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বাল্যবিবাহটি বন্ধ করে দেয়া হয়। এসময় এ ধরণের কাজ আর ভবিষ্যতে করবে না মর্মে অভিভাবকগণ মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান।

তবে ওই কিশোরীর অভিভাবক জানান, তারা কেবলমাত্র উভয় পক্ষের কথা-বার্তা চালানোর জন্যে আজকে আয়োজন করেছিলেন, বিবাহের জন্যে নয়!

তবে এব্যাপারে দীঘিনালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং নির্বাহী হাকিম ফাহমিদা মুস্তফা জানান, বাল্যবিবাহ ভবিষ্যতে আর করবে না মর্মে মুচলেকা দিয়েছেন এবং এলাকায় বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে তুলে ধরা হয়। এসময় তিনি আরও জানান, বাল্যবিবাহের বিরূদ্ধে উপজেলা প্রশাসন, কঠোর ভূমিকায় থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × two =

আরও পড়ুন