দীঘিনালায় ‘জুম্ম সাংস্কৃতিক সংস্থা’র সভাপতি অপহরণের অভিযোগ!

fec-image

দীঘিনালায় জ্ঞানকীর্তি চাকমা নামে একজনকে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। অপহ্রত জ্ঞানকীর্তি চাকমা জুম্ম সাংস্কৃতিক সংস্থা’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং উদালবাগান গ্রামের মৃত সুকেন্দ্র চাকমার ছেলে। তাঁকে অপহরণ করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান প্রজ্ঞানজ্যোতি চাকমা।

জানা যায়, শনিবার (২৩ মে) দুপুরে বাড়ীতে কাজ করার সময় ৪/৫জনের অজ্ঞাত পাহাড়ি যুবক অস্রের মুখে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় তাকে।

অপহৃতের স্ত্রী মধুমিতা মারমা জানান, তার স্বামী কোন আঞ্চলিক রাজনৈতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন না। ওয়ার্ড মেম্বারের পরিচয় দিয়ে ত্রাণ বিতরণের কথা বলে তাঁর স্বামীকে মোবাইলে কল দিয়ে ডেকে নেওয়া হয়।

এরপর তিনি প্রত্যক্ষদর্শীদের নিকট জানতে পারেন পাকা সড়কে যাওয়ার পর দুইটি মোটরসাইকেল আরোহী সন্ত্রাসীরা তাঁকে মোটরসাইকেলে তোলে বাবুছড়ার দিকে নিয়ে যায়।

এর কিছুক্ষণ পর আবার একটি সিএনজিযোগে জ্ঞানকীর্তিকে দীঘিনালা সদরের পথ ধরে নিয়ে যায়। ঘটনার পর থেকে তার স্বামীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ রয়েছে।

বাড়ির সকলের মধ্যেই আতংক বিরাজ করছে, হঠাৎ এমন ঘটনায় তাৎক্ষনিকভাবে তারা কি করবেন কোন সিদ্ধান্তও নিতে পারছেন না। তবে স্থানীয় প্রতিনিধিদের সাথে আলোচনা করছেন।

দীঘিনালা ইউপি চেয়ারম্যান প্রজ্ঞানজ্যোতি চাকমা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় দোকানদারদের নিকট থেকে তিনি জেনেছেন, অপহরনকারীরা স্বশস্ত্র অবস্থায় ছিল। দিন-দুপুরে এমন ঘটনা হলেও অস্ত্রের ভয়ে অপহরণের সময় কেউ প্রতিবাদ করতে পারেননি। ঘটনাটি নিয়ে কোথায় আলোচনা করা যায় সেটি ভেবে দেখতেছেন বলেও দাবী করেন প্রজ্ঞানজ্যোতি।

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) খাগড়াছড়ি ইউনিটের সংগঠক অংগ্য মারমা এক বিবৃতিতে জ্ঞানকীর্তি চাকমাকে অপহরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে তাকে উদ্ধার ও মুক্তির দাবি জানিয়েছেন।

দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উত্তম চন্দ্র দেব জানান, অপহরণের বিষয়টি লোকমুখে শুনেছি, তবে লিখিতভাবে কেউ কোন প্রকার অভিযোগ করেননি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ইউপিডিএফ, চাকমা, দীঘিনালা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four + 3 =

আরও পড়ুন