দীঘিনালায় হানাদার মুক্ত দিবস উদযাপন

fec-image

দীঘিনালায় হানাদার মুক্ত দিবস উদযাপন করা হয়েছে। বুধবার দীঘিনালা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে ১৫ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত দিবস পালন করা হয়। এসময় জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করা হয়।

এ উপলক্ষে বুধবার (১৫ ডিসেম্বর ) সকালে উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দীঘিনালা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি মো. এরশাদ হোসেন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দীঘিনালা জোনের জোনের জোনাল ষ্টাফ অফিসার মেজর মেহেদী আসলাম বেগ, উদ্ধোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম মুক্তিযুদ্ধকালীন (বিএলএফ) জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবু রণ বিক্রম ত্রিপুরা,

প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দীঘিনালা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ কাশেম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ এনামুল হক, ১নং মেরুং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন, এবং মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধক চট্টগ্রাম মুক্তিযুদ্ধকালীন (বিএলএফ) জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবু রণ বিক্রম ত্রিপুরা। এ সময় তিনি বলেন, বর্তমান প্রজন্মের কাছে উপজেলা পর্যায়ে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সংগ্রহ সহ ইতিহাস জানা খুবই প্রয়োজন। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাসকে ধারণ করে এগিয়ে গেলেই নিজেকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব।

এর আগে বিজয় শোভাযাত্রাটি উপজেলা পরিষদ গেইট থেকে শুরু হয়ে দীঘিনালার মেইন সড়ক প্রদক্ষিন করে বঙ্গবন্ধু চত্বর কলেজ গেইট হয়ে উপজেলা পরিষদে এসে শেষ হয়।

প্রসঙ্গত আজ ১৫ ডিসেম্বর, খাগড়াছড়ি হানাদার মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের আজকের এইদিনে চেঙ্গীনদী বিধৌত এই খাগড়াছড়ি শত্রুমুক্ত হয়েছিল। সারাদেশের মানুষের মতো খাগড়াছড়ির পাহাড়ি বাঙ্গালী নির্বিশেষে মুক্তিযুদ্ধে। সর্বশেষ ১৪ ডিসেম্বর গাছবান ডিসেম্বর খাগড়াছড়ির সবচেয়ে উঁচু স্থান বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়।

১৯৭১ সালের ১৫ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১০ টায় খাগড়াছড়িতে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলন করে তৎকালীন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক দোস্ত মোহাম্মদ চৌধুরী। এসময় গ্রুপ কমান্ডার অশোক চৌধুরী বাবুল, মংসাথোয়াই চৌধুরী, জুলু মারমাসহ অনেকেই সঙ্গে ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten − seven =

আরও পড়ুন