দু’পক্ষের হাতাহাতি, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ-সমাবেশ পণ্ড

news pic copy

রাঙামাটি প্রতিনিধি:

পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে সভাপতিত্ব করা নিয়ে দু’পক্ষের হাতাহাতি শুরু হয়। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনে এবং পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচী বিক্ষোভ মিছিল পণ্ড হয়।  মঙ্গলবার সকালে রাঙামাটি পৌরসভা চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।

পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের জেলা সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, আমরা দীর্ঘ দিন ধরে পার্বত্য চট্টগ্রামে জনগণের অধিকার আদায়ে আন্দোলন করে আসছি। সাবেক এবং বর্তমান নেতাদের নিয়ে বৈঠক হয়েছে পার্বত্য অঞ্চলে জোরালো আন্দোলন করার জন্য।

এদের মধ্যে জেএসএস এবং ইউপিডিএফ সমর্থক কিছু বাঙালী নেতা আমার উপর হামলা করে। তিনি আরও বলেন, আমি বিচার চাই এবং আমাদের বিচার যদি প্রশাসন না করে তাহলে এ বিচার পার্বত্যবাসী করবে বলেও তিনি জানান।

পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা মো. সাব্বির আহম্মেদ জানান, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বাঙালী কোটা ও আনুপাতিক হারে চাকুরীতে নিয়োগ নিয়ে বৈষম্যের প্রতিবাদে পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচী বিক্ষোভ মিছিল ছিল। রাঙামাটি শান্তিনগর থেকে একটি মিছিল এসে পৌরসভায় ভিড় জমায়।

এদের মধ্যে কিছু জুনিয়র ছাত্রদের সাথে জের ধরে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশ লাঠিচার্জ করে ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনে এবং বিক্ষোভ মিছিল পণ্ড করে দেয়।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদেরকে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের উপদেষ্টা, কেন্দ্রীয় নেতা এবং জেলা পর্যায়ের নেতাদের নিয়ে সমাধান এবং বিচার করতে হবে। তাদের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচীগুলো চলমান থাকবে বলেও তিনি জানান।

রাঙামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুর রশিদ জানান, আজ  পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের বিক্ষোভ মিছিল ছিল।  এ বিক্ষোভ মিছিলে কে সভাপতিত্ব করবে তা নিয়ে হাতাহাতি হয়। পরে আমরা লাঠিচার্জ করে দু’পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করি এবং বিক্ষোভ মিছিলও পণ্ড করা হয়।

এদিকে রাঙামাটির কর্মসূচী সফল হয়েছে বলে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে দাবী করা হয়েছে। পিবিসিপি’র রাঙামাটি জেলা শাখার প্রচার সম্পাদক আলমগীর হোসেন কর্তৃক সাক্ষরিত ও কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ইঞ্জিনিয়ার আলকাস আল মামুন কর্তৃক প্রেরিত এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে,

rmt poto1

‘২৮ ফেব্রুয়ারী  সকাল ১১টায় রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে  ভর্তি এবং কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়োগের ক্ষেত্রে পার্বত্য বাঙ্গালী কোটার  দাবীতে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ  রাঙ্গামাটি  জেলা শাখার  উদ্যোগে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ ও ভর্তিতে পার্বত্য বাঙালি কোটা চালু, বিতর্কিত পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন সংশোধনী আইন ২০১৬ অবিলম্বে বাতিল করা,পার্বত্য ৩ জেলায় অব্যাহত চাঁদাবাজি বন্ধ করা, অবৈধ অস্র উদ্ধার, ২০১৭ সালের এস এস সি পরীক্ষায়  সংবিধান বিরোধী আদিবাসী শব্দ ব্যবহারকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা, নানিয়ারচরে বাঙালিদের মাল ভর্তি ট্রাকে আগুন এবং ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপূরণসহ পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের নিয়মিত ৮দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের রাঙামাটি জেলা শাখার আহবায়িকা বেগম নুরজাহানের নেতৃত্ত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়, বক্তব্য রাখেন মো: আলমগীর। জেলা সেক্রেটারী মো: জাহাঙ্গীর আলম,মো: শাহআলম,জেলা সহ সভাপতি মো:হাবিবুর রহমান,বকুল,শাখাওয়াত হোনেস, জামিল বক্তব্য রাখেন’।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − one =

আরও পড়ুন