দেশে লবণের ঘাটতি নেই: শিল্পমন্ত্রী

fec-image

দেশে লবণের কোন ঘাটতি নেই। তাই লবণ আমদানীর প্রশ্নই ওঠেনা। কেউ চাইলেই লবণ আমদানী করা যাবেনা। শুক্রবার (৫ জুলাই ) কক্সবাজারে এক অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন একথা বলেন।

দেশে লবণের ঘাটতি নেই উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছেন, কোরবানির ঈদে চামড়া শিল্পে লবণ ব্যবহারের পরও স্বাভাবিক চাহিদার লবণ উদ্বৃত্ত থাকবে। তাই কেউ চাইলেও আমদানির প্রশ্নই আসে না।

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) ‘লবণ চাষ ও আয়োডিনযুক্তকর : সার্বজনীন আয়োডিনযুক্ত লবণ’ শীর্ষক কক্সবাজারে আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী এসব কথা বলেন। কলাতলী সৈকতের একটি তারকা হোটেলের কনফারেন্স হলে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, চাষিদের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং সরকারের সহায়তায় লবণ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছি আমরা। এ ধারা অব্যাহত রাখতে এবং আয়োডিনের ঘাটতি পূরণের ক্ষেত্রে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

তিনি আরও বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থ অর্থবছরে লবণের চাহিদা ছিল ১৬ দশমিক ৫৭ লক্ষ মেট্রিক টন। ১৮ লক্ষ মেট্রিক টন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা বিপরীতে মাঠে নেমে মৌসুম শেষে উৎপাদন হয়েছে ১৮ দশমিক ২৪ লক্ষ মেট্রিক টন। চাহিদা ও লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি লবণ উৎপাদন হওয়ায় বর্তমানে দেশে লবণের কোন ঘাটতি নেই।

শিল্পপ্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, আমদানি নির্ভরশীল না হয়ে দেশে গুণগত মানসম্পন্ন উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতায় বিসিকের মাধ্যমে নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ইউনিসেফের সহায়তায় লবণ চাষের নতুন প্রযুক্তি পাইলটিং কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে।

উল্লেখ্য লবণ মিল মালিক গ্রুপের একটি পক্ষ বিসিকের সরেজমিন রিপোর্টের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে সরকারের উচ্চ মহলে ভুল বুঝিয়ে প্রতি বছর এই মৌসুমে লবণ আমদানী করে দেশের স্বনির্ভর খাত লবণকে পঙ্গ করে দিয়ে থাকে। এতে করে লবণের মূল্য কমে যায়, ক্ষতিগ্রস্ত হয় লবণ চাষীরা।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ঘাটতি, লবণের, শিল্পমন্ত্রী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 2 =

আরও পড়ুন