ধর্ষণ মামলার আসামি রাঙামাটির ভুষণছড়া ইউপি চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবি স্থানীয়দের

fec-image

‘বিয়ের প্রলোভনে’ ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হওয়া রাঙামাটির বরকল উপজেলা যুবলীগের সেই বহিস্কৃত সভাপতি ও ভুষণছড়া ইউপি চেয়ারম্যান পলাতক মামুনুর রশিদ মামুনের বিচার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

তারা মামুনকে ‘ধর্ষক, দুর্নীতিবাজ ও অত্যাচারি’ আখ্যা দিয়ে দ্রুত ইউপি ‘চেয়ারম্যান পদ’ থেকে অপসারণের দাবি জানিয়েছেন।

রবিবার (১৯ জুলাই) বেলা এগারোটার দিকে ভুষণছড়া অস্থায়ী ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের সামনে ঘণ্টাব্যাপি মানববন্ধন করেন ভুক্তভোগি দুইশতাধিক এলাকাবাসী।

মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ সমাবেশও করেন তারা। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা বিএম জাফর ইকবাল।

মানববন্ধনে অংশ নেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা মো. সুলতান আলী, উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি মো. আলামিন, যুগ্ম সম্পাদক কামাল হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবর আলীসহ আওয়ামী লীগে, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

মামলা হওয়ার পর থেকেই চেয়ারম্যান মামুন গ্রেপ্তার এড়াতে আত্মগোপনে আছেন। তবে মামুনের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তা বন্ধ থাকায় কোন বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এর আগে গত ২৪ জুন বরকল থানায় ধর্ষিতার বাবা নাছির হাওলাদার ধর্ষণ মামলাটি দায়ের করেন। পরদিন ২৫ জুন রাঙামাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে ধর্ষিতা নারীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ধারায় জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে।

তবে মামলা হওয়ার ২৬ দিন পার হলেও মামুনকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। বরকল থানার ওসি কাজী মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘আসামি মামুন চেয়ারম্যান পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করতে খুঁজছে পুলিশ’।

ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হওয়ায় গত ৫ জুলাই বরকল উপজেলা যুবলীগের সভাপতির পদ থেকে মামুনকে বহিস্কার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো. মাইনুল হোসেন খাঁন নিখিল স্বাক্ষরিত বহিস্কারাদেশের চিঠিতে মামুনকে বহিস্কার করা হয়েছে।

মামলা হওয়ার ১২ দিনের মাথায় দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে সংগঠনটি।

এতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান শেখ ফজলে সামস পরশ এর নির্দেশে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা অন্তর্গত বরকল উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুনকে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিস্কার করা হলো’।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আওয়ামী লীগ, ইউপি চেয়ারম্যান, ছাত্রলীগ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen + sixteen =

আরও পড়ুন