নতুন উদ্যমে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আহ্বান দাতাসংস্থাগুলোর

fec-image

নতুন উদ্যমে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সবাইকে আহ্বান জানিয়েছে দাতাসংস্থাগুলো।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বিশ্ব শরণার্থী দিবস উপলক্ষে এ আহ্বান জানানো হয়।

এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, ‘আমরা সংঘাত, সহিংসতা এবং নিপীড়নের কারণে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হওয়া ১২ কোটি মানুষ, অর্থাৎ বিশ্বের প্রতি ৬৯ জনের মধ্যে ১ জনের সাথে সংহতি প্রকাশ করছি। এদের মধ্যে রয়েছে ১০ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা, যারা মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।’

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে দাতাসংস্থাগুলো বিবৃতিতে আরও বলেছে, ‘সব প্রতিকূলতায় রোহিঙ্গা জনগণের অবিশ্বাস্য স্থিতিশীলতা এবং আত্মবিশ্বাস সম্মানের সঙ্গে স্মরণ করছি।’

বিবৃতিতে দাতাসংস্থাগুলো আরও বলেছে, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থী এবং বাংলাদেশের স্থানীয় সম্প্রদায়ের জন্য প্রয়োজনীয় সেবা প্রদানে চেষ্টা চালাচ্ছি। উদীয়মান নতুন সংকট এবং ক্রমবর্ধমান বৈশ্বিক মানবিক চাহিদার মাঝে আমরা এই দীর্ঘস্থায়ী সংকটের জন্য বিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষণের অবিরত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। শিবিরগুলোতে শরণার্থীদের জন্য শিক্ষা এবং জীবিকার সুযোগ বাড়ানো, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য দারিদ্র্য এবং সেই চক্র কাটিয়ে ওঠার জন্য প্রয়োজনীয় আত্মনির্ভরশীলতা তৈরি করারও চেষ্টা করছি।’

এতে আরও বলা হয়, রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য তাদের স্বেচ্ছায় নিরাপদ, মর্যাদাপূর্ণ এবং দীর্ঘমেয়াদী টেকসই প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে সবাই আশাবাদী । তবে, মিয়ানমারে ক্রমবর্ধমান সংঘাত এবং মানবিক অবস্থার অবনতির অর্থ হলো যে, এটি নিকট ভবিষ্যতে অসম্ভব। আমরা রাখাইন রাজ্যের ক্রমবর্ধমান পরিস্থিতি এবং সীমান্তের ক্রস-বর্ডারে এর প্রভাব নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

বিবৃতিতে সংস্থাগুলো বলেছে, ‘২০২৩ সালের ডিসেম্বরে গ্লোবাল রিফিউজি ফোরামে, আমরা জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুতির জটিলতা মোকাবিলার জন্য বৈশ্বিক দায়িত্ব এবং অংশীদারিত্ব বাড়ানোর একটি যৌথ প্রতিশ্রুতি দিয়েছি। বাংলাদেশে অবস্থানকালে রোহিঙ্গাদের জন্য একটি উন্নত এবং মর্যাদাপূর্ণ জীবন নিশ্চিত করতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য টেকসই সমাধানের দিকে আঞ্চলিক সমন্বয় এবং যৌথ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাব।’

 

সূত্র: সময়টিভি
Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বাংলাদেশ, রোহিঙ্গা সংকট
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন