নাইক্ষ্যংছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ দুই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, যেকোন মুহূর্তে ধসে পড়ার আশঙ্কা

fec-image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের বাইশারী-আলীক্ষ্যং সড়কে বাইশারী উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ এবং বাইশারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় লাগোয়া রাস্তাটি বিগত বছরে বর্ষা মৌসুমে অতি বৃষ্টির কারণে দেবে গিয়ে ফাটলসহ রাস্তাটির অধিকাংশ পার্শবর্তী খেলার মাঠে মাটি সরে যায়। যার ফলে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় লোকজন চলাচল করছিল।

গত সপ্তাহে সড়ক ও জনপথ বিভাগ রাস্তাটি মেরামতের জন্য গাইড ওয়াল নির্মাণে স্কেভেটর দিয়ে মাটি সরানোর কাজ শুরু করে। মাটি সরানোর কাজ শেষ না হওয়ার আগে পার্শ্ববর্তী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পিইডিপি ৪ ভবনের গাইড ওয়ালসহ মাটি ধসে এখন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে দুটি ভবন। যেকোন মুহূর্তে ধসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে বিদ্যালয়ের ভবন ২টি। তাই জরুরি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছে হাজারো শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় লোকজন।

সরজমিনে গিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রুবায়েদ নাহিদ নুর সহ স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, বাইশারী বাজার সংলগ্ন সড়কটির পার্শবর্তী পূর্ব পার্শ্বে রয়েছে দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। একটি বাইশারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং অপরটি বাইশারী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ। তার পাশেই চলছে সড়ক উন্নয়ের কাজ। গাইড ওয়াল নির্মাণের জন্য মাটি সরাতে গিয়ে দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবন রয়েছে ঝুঁকিতে।

গত তিনদিনের ভারী বর্ষণের ফলে বাউন্ডারি ওয়ালসহ ভবনের পাশে এখন ফাটল ধরছে। এছাড়াও টানা বর্ষণের মধ্যে মাটি কাটায় পুরো রাস্তাটি ধসে গিয়ে যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আলম জানান, বিষয়টি তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের অবেহেলার কারণে আজ সড়ক যোগাযোগ বন্ধসহ হাজারো মানুষের কষ্টের শেষ নেই।

স্থানীয় বাসিন্দা শহিদুল ইসলাম জানান, বিগত ২ বছর যাবত সড়কটির ফাটল দেখা দিয়েছে। এতদিন পর্যন্ত কাজ না করে বর্ষা মৌসুমে তাও অতি বৃষ্টিতে মাটি কাটায় আজ রাস্তার বেহাল দশা। দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে যেকোন মুহূর্তে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

বাইশারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হাফছা বেগম জানান, তার স্কুলে সব শিশু রয়েছে। স্কুলের সামনেই ফাটল। বিষয়টি তিনি শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকারিয়া জানান, খবর পেয়ে তিনি দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি বিষয়টি সরজমিনে দেখে হতবাক। সাথে সাথে তিনি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীকে বিস্তারিত মোবাইল ফোনে অবহিত করেন। তিনি আরো জানান, অপরিকল্পিত কাজের জন্য সড়কের এই অবস্থা।

এছাড়াও সরজমিনে পরিদর্শন করেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ত্রি রতন চাকমা ও বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আলম কোম্পানি।

রাত আটটায় সরজমিনে পরিদর্শনে আসেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের এস ডি ই ফারহান আহমেদ। তিনি বলেন, দ্রুততম সময়ে কাজটি সম্পন্ন করার নির্দেশ দিয়েছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোসলেহ উদ্দীন জানান, বিষয়টি তিনি জানার পর পরই ঘটনাস্থলে ইঞ্জিনিয়াকে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে কাজ চলমান রয়েছে। মেরামতের জন্য মালামাল ওই স্থানে পৌছে গেছে।

স্থানীয়দের দাবী দ্রুত রাস্তা মেরামত করা না গেলে যেকোন সময় বড় দুর্ঘটনাসহ স্কুলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন