নাইক্ষ্যংছড়িতে কলেজছাত্রী অপহরণ চেষ্টার অভিযোগ:  গ্রেফতার ৪

fec-image

নাইক্ষ্যংছড়ি সরকারি হাজি এমএ কালাম ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের এক ছাত্রীকে অপহরণ চেষ্টার ঘটনায় ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে থানায়। আর ৪ কিশোরকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। মামলার বাদী ছাত্রীর পিতা মো. হাশেম। তিনি নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা সদরের পূর্ববিছামারা গ্রামের বাসিন্দা।

পু্লিশ জানান আটক ৪ জনকে বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে বান্দরবান আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আবুল হাশেম প্রকাশ কালু মিয়া জানান, মঙ্গলবার কলেজ ছুটির পর ২টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে পাশের দোকানে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। এ সময় নাইক্ষ্যংছড়ি সদরের পূর্ববিছামার নুুুরুল হাকিমের ইন্টারমিডিয়েট সেকেন্ড ইয়ারের পড়ুুয়া কলেজ ড্রেজ পড়া ছাত্রি তাসনিম আক্তার (১৭) চিৎকার দিচ্ছিলেন বাঁচাও বাচাঁও বলে। শুনে কালু এগিয়ে আসেন। ছাত্রীকে টানা হেছড়া করছিলো এ যুবক। সে পার্শ্ববর্তী কচ্ছপিয়ার নতুন মিয়াজি পাড়ার হাজি আবদুল গফুর মিয়াজির ছেলে তামিম মিয়াজি। এসময় তার নেতৃতে আরও ৩/৪ জন যুবক অংশ নেয়।

কালুু মিয়া আরো জানান, মেয়েটিকে উদ্ধার করেন তিনি। কিন্ত বিধি বাম। এরই মাঝে তার অপেক্ষমান বন্ধুদের ফোনের কারণে আরো ২০/২২ জন বখাটে যুবক রাম দা, বল্লম, ছুরি সহ চলে আসে গয়াল খামারের এ এলাকায়। সৃষ্টি হয় একক অরাজকতার।

গ্রামবাসী এগিয়ে এসে মেয়েটি এব্ং কালুকে উদ্ধার করে। আর জনতার হাতে আটক হয় ৪ জন। তারা হলো- কচ্ছপিয়ার নতুন মিয়াজি পাড়ার হাজি গফুরের ছেলে তামিম(১৯), ইসমাইলের ছেলে রিপন (২০) খুরশেদের ছেলে মো: নবী(১৮) ও মৌলভী কাটার শামূল আলম (২১)।

থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন বুধবার দুপুরে জানান, থানায় আটক ৪ জনসহ ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। বাকী অজ্ঞাতনামাদের দ্রুত গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। এছাড়া বেআইনী কর্মকাণ্ডে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। কেননা এ ধরণের কাজ সমাজকে কলুষিত করে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × three =

আরও পড়ুন