নাইক্ষ্যংছড়িতে কারেন্ট পোকা দমনে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আলোক ফাঁদ পদ্ধতি

fec-image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় বাদামী গাছ ফড়িং বা কারেন্ট পোকায় আক্রান্ত ধানক্ষেত রক্ষায় কৃষকদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আলোক ফাঁদ পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে ধানের উৎপাদন ও খরচ দুটোই কমে যায় এবং পোকা দমনে কার্যকরী পদক্ষেপ বলেও  মনে করছেন কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অফিসের কৃষি কর্মকর্তাগন স্ব-স্ব ব্লকে কৃষকদের ধানক্ষেত কিভাবে পোকার আক্রমণ থেকে বাঁচা যায়, তা হাতে কলমে শিখিয়ে দিচ্ছেন। তারই প্রেক্ষিতে গত বুধবার উপজেলা কৃষি অফিসের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রফিকুল আলমের উপস্থিতিতে কৃষকরা সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বাইশারী সদর ব্লকের কয়েকটি জায়গায় আলোক ফাঁদ স্থাপন করেছে।

আলোক ফাঁদের সুফল সম্পর্কে হলদ্যাশিয়া এলাকার কৃষক ক্যাভাই মার্মা বলেন, আকস্মিকভাবে বাদামী গাছ ফড়িং বা কারেন্ট পোকার আক্রমণ করে ধানক্ষেতে। এতে ক্ষতি যা হওয়ার হয়ে গেছে। এখন বাকী ধান ক্ষেত রক্ষায় বিভিন্ন পদ্ধতি হাতে কলমে শিখিয়ে দিচ্ছেন কৃষি কর্মকর্তারা। তারই একটি হচ্ছে আলোক ফাঁদ। আমরা মনে করতাম ফসলের সব পোকাই ক্ষতি করে। তবে আজকে এই আলোক ফাঁদ স্থাপন করে উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তার মাধ্যমে জানতে পারলাম জমিতে উপকারী পোকাও থাকে। আলোক ফাঁদ ব্যবহারের মাধ্যমে উপকারী ও অপকারী পোকা শনাক্ত করে অপকারী পোকা দমন করা সহজ হয়েছে।

কৃষক আবুল হাশেম বলেন, এ পদ্ধতিতে আমরা আগের চেয়ে কম খরচে ক্ষতিকর পোকা দমন করতে পারছি। আবার উপকারী পোকাও বাঁচাতে পারছি।

বাইশারী সদর ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা রফিকুল আলম জানান, আলোক ফাঁদ একটি সহজলভ্য ও স্বল্প খরচে পোঁকা দমন পদ্ধতি। কৃষকরা এই পদ্ধতি ব্যবহার করে খুব সহজেই ক্ষতিকারক পোঁকামাকড় দমন ও উপকারী পোঁকা রক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে।

এ বিষয়ে উপজেলা সহকারি কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস বলেন- চলতি বছরে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় রোপা আমনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৩ শত ৩৪ হেক্টর জমি। সে অনুযায়ী উক্ত লক্ষ্যমাত্রায় রোপা আমন আবাদ করা হয়েছে। তাছাড়া সরেজমিনে পরিদর্শন করে কৃষকদের ধানের ক্ষতিকারক বিভিন্ন পোকা চিহ্নিতকরণসহ পোকার আক্রমণ ঠেকাতে আলোক ফাঁদের ব্যবহারসহ মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাদের বাদামী গাছ ফড়িংসহ বিভিন্ন পোকা সম্পর্কে কৃষকদের সাথে নিয়ে সচেতনতা মূলক সভা করার পরামর্শ দেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven + three =

আরও পড়ুন