নাইক্ষ্যংছড়ি স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

Bandarban BNP PIC 4.10.2013

জমির উদ্দিন:

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের কেন্দ্রীয় উপজাতীয় বিষয়ক সম্পাদিকা মা ম্যা চিং বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া এদেশে কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবেনা। আওয়ামীলীগ নিজের অধীনে নির্বাচন করে শেখ হাসিনা আবারও প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দিবা স্বপ্ন দেখছেন। প্রহসনমূলক নির্বাচন কখনো দেশের জনগন বাস্তবায়িত হতে দেবেনা। কোন দেশী-বিদেশী শক্তি জনতার আন্দোলনকে দাবিয়ে রাখতে পারবে না।

বিএনপিসহ সাধারন জনগন রাজপথে দূর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবি আদায় করবে। শুক্রবার বিকালে নাইক্ষ্যংছড়ি বাজার চত্বরে স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পুণমিলনি ও জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  

নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আব্দুল বাহাদুরের সভাপত্বিতে বক্তব্যে রাখেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রচার সম্পাদক মহিউদ্দিন মনির, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যাপক ওসমান গনি, সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রশিদ, কেন্দ্রীয় ক্ষুদ্র-জাতিসত্ত্বা বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম, লাকসাম স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শাহিনুর রহমান সোহাগ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ন আহ্বায়ক আতাউর রহমান রিপন, চ নু মং মারমা, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাকিবুর রহমান জুয়েল, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির যুগ্ন সম্পাদক কামাল উদ্দিন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মুসা হাওলাদার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

মা ম্যা চিং জিয়াউর রহমানকে স্বাধীনতার ঘোষক দাবী করে তিনি বলেন শেখ মুজিবুর রহমান কখনো বাংলাদেশ স্বাধীন হউক তা চাননি, তিনি চেয়েছিলেন পূর্ব পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী হতে।

কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মহিউদ্দিন মনির, প্রধানমন্ত্রী পুত্র জয়ের ডিজিটাল পরিকল্পনায় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিলবোর্ড দখল করে সরকারের তথাকথিত উন্নয়নের প্রচার চালাতে। জয়ের পরিকল্পনায় উৎসাহিত হয়ে যুবলীগ, ছাত্রলীগ সারা দেশে এাসের রাজত্ব কায়েম করে মহাজোট সরকারের বিজয় নয়, শোচনীয় পরাজয় ত্বরান্বিত করছে।

সমাবেশের আগে স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পুণর্মিলনী উপলক্ষে একটি মিছিল বের করে উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বাজার চত্ত্বরের শেষ হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − 5 =

আরও পড়ুন