নানিয়ারচর সেনা জোন কর্তৃক অসহায় ও দুস্থদের মাঝে হাঁসের বাচ্চা বিতরণ

fec-image

“সম্প্রীতি ও উন্নয়ন প্রকল্প” এর আওতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী নানিয়ারচর জোন (১০ বীর) কর্তৃক অসহায় ও দুস্থদের মাঝে হাঁসের বাচ্চা বিতরণ করেছেন।

বুধবার (৪ আগস্ট) সকাল ১১ঘটিকায় রাঙামাটির নানিয়ারচর জোন প্রাঙ্গনে উপজেলার অসহায় ও গরীব, দুস্থ জনসাধারণের মাঝে উন্নত জাতের খাকি ক্যাম্বল জাতের হাঁসের (পাখি) বাচ্চা বিতরণ করেন নানিয়ারচর জোন কমান্ডার লেফটেনেন্ট কর্নেল গোলাম মাহমুদ হাসান (পিএসসি)।

করোনাভাইরাসে অসহায় জনমানুষের পাশে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী নিঃস্বার্থভাবে পাহাড়ে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড করে যাচ্ছেন ।

জোন কমান্ডার বলেন, দেশের তরুণ সমাজের অনেকে আজ উদ্যোক্তা হয়ে সফলতার স্বপ্ন দেখছে। কেউ ফ্রিল্যান্সিং, কেউবা ডিজিটাল মার্কেটিং করে সফল হচ্ছে। কেউবা বাণিজ্যিক ভিত্তিতে মাছ চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছে। হাঁস পালন করে নানিয়ারচর জোন স্থানীয় তরুণদের সফলতার স্বপ্ন দেখাচ্ছে।

নানিয়ারচর সেনা জোনের সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চেঙ্গী নদীতে মনের সুখে চরে বেড়াচ্ছে হাজার হাজার নানা প্রজাতির হাঁস। তাদের এই উদ্যোগ দেখে বেকার যুবকেরা নদীতে হাঁস পালন করেও স্বাবলম্বী হতে পারে। পাশাপাশি একটি বিশেষ ইউনিট ডিমের বাচ্চা প্রজনন সহ হাঁসের দেখাশোনা করে যাচ্ছেন ।

জোন সূত্রে আরও জানা যায়, স্থানীয় বেকার যুবকরা যাতে তাদের হাঁস পালন দেখে দেশি হাঁসের খামার প্রকল্প হাতে নিতে পারে। এবং বাণিজ্যিকভাবে হাঁস ও ডিমের যোগান দিতে পারে। নিয়মিত পরিচর্যা করে জোনে সেনাদের মাংস ও ডিমের চাহিদা মেটাচ্ছে।

বর্তমানে খামারটিতে ১ হাজার দেশি হাঁস আছে। প্রতিদিন খামার থেকে ৪০০ থেকে সাড়ে ৪০০ ডিম পাওয়া যাচ্ছে। আগামীতে ডিমের উৎপাদন আরও বাড়বে বলে আশা করছে নানিয়ারচর জোন কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ভ্যাটেনারি সার্জন ডা. অর্জুন দেবনাথ বলেন, উপজেলার অনেকগুলো খামার থাকলেও এই খামারটি একটু ব‍্যতিক্রম। এখানে হাজার খানেক হাঁস আছে। দেশি হাঁসের পাশাপাশি তারা খাকি ক্যাম্বল হাঁস পালন করছে।

তিনি আরও জানান, হাঁস পালন একটি লাভজনক পেশা। সঠিক নিয়মে খাদ্যদান, ভেক্সিনেশন প্রয়োগ ও ভাল খামার ব্যবস্থার মাধ্যমে বেকার যুবক ও বয়স্ক যে কোন বয়সের উদ্যোক্তারা স্বাবলম্বী হতে পারেন।

বর্তমানে সরকার বেকার যুবকদের স্বাবলম্বী করতে নানা ধরনের উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। উদ্যোক্তাদের স্বাবলম্বী করতে সরকার সুদবিহীন ঋন প্রদান করছে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − one =

আরও পড়ুন