নিখোঁজ নয় আত্মগোপনের নাটক করেছিলেন ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী

fec-image

নিখোঁজ নয় পরিকল্পিতভাবে আত্মগোপনের নাটক করেছিলেন খাগড়াছড়ি গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী শানু মুছল্লি (৫১)। এরপর পরিবারের লোকদের দিয়ে গুইমারা থানায় নিখোঁজের ডায়েরি করায় সে। নিখোঁজের ছয়দিন পরে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে তাকে আটক করার পর বিষয়টি জানাযায়। সে জালিয়াপাড়া এলাকার মৃত আব্দুস সামাত মুছল্লির ছেলে।

আটক শানু মুছল্লি জানান, সে মূলত ভাঙ্গারী ব্যবসার আড়ালে টক্কা ব্যবসা করে। গত ১৩ অক্টোবর বুধবার সকালে পরিকল্পিতভাবে জালিয়াপাড়া থেকে চট্রগ্রাম তার চাচাতো বোনের কাছে গিয়ে এ নাটকটি সাজায়। পরে আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফের দুই সদস্য ৫০ হাজার টাকা দাবি করে, তাকে আটক করে রেখেছে বলে মোবাইল ফোনে ছেলেকে জানায়।

গুইমারা থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী শানু মুছল্লি নিখোঁজ হয়নি পরিকল্পিতভাবে আত্মগোপনের নাটক সাজিয়েছে। তার বিষয়ে মামলা হচ্ছে। এর আগেও সে বেশ কয়েক বার পরিবারকে না জানিয়ে এমন করেছে।

উল্লেখ্য গত ১৩ অক্টোবর বুধবার সকালে নিখোঁজের সাটক সাজানোর পর পরিবারের লোকজনের নিকট রাত দশটার সময় ফোনে জানায় আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফের দুই সদস্য ৫০ হাজার টাকা দাবি করে, তাকে আটক করে রেখেছে। এরপর থেকে মোবাইল ফোন বন্ধ করে রেখেছে। পরে তার স্ত্রী চার দিন পর গুইমারা থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × five =

আরও পড়ুন