টেকনাফের হ্নীলা ইউপি নির্বাচনে

নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থক কর্তৃক স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের হুমকির অভিযোগ

fec-image

আসন্ন হ্নীলা ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত জেনে নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থক কর্তৃক হুমকি-ধমকি প্রদান এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র সমূহে পর্যাপ্ত পরিমাণ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করে অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আলী হোছাইন শোভন।

১৮ সেপ্টেম্বর (শনিবার) সকাল ১১টায় আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলী হোছাইন শোভনের বাস ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তিনি।

এতে তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন বাংলাদেশ নির্বাচন কর্তৃক ঘোষিত ১ম ধাপের ইউপি নির্বাচনে টেকনাফের ৪টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আমি ২নং হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দিতা করছি। নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা এবং গণসংযোগকালে আনারস প্রতীকের প্রতি সাধারণ ভোটারদের স্বতঃস্ফুর্ত সমর্থন ও আগ্রহ দেখে আমি নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। কিন্তু নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী এবং কর্মী-সমর্থকেরা আমার আনারস প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত জেনে বিভিন্ন প্রকারের হুমকি-ধমকি দেওয়া অব্যাহত রেখেছে। এতে সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ব্যাহত হতে পারে।

হ্নীলা ইউনিয়নের ৯টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে হ্নীলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, সুফিয়া কমিউনিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উলুচামরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জাদিমুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রঙ্গিখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ ৫টি ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রসমুহে আমি ভোট কারচুপির আশংকা করছি। সব কেন্দ্রে ইতিমধ্যে নৌকার কর্মী-সমর্থকেরা আনারস মার্কার সমর্থকদের হুমকি দিচ্ছেন। তারা আনারসের কর্মীদের কেন্দ্রে না যেতে নিষেধ করছেন। কেন্দ্রে গেলে আমার সমর্থকেরা প্রাণনাশের আশঙ্কা করছেন। নৌকার প্রার্থী এবং সমর্থকেরা এলাকায় এলাকায় গিয়ে বকাঝকা করছেন এবং ভোট কেন্দ্রে প্রকাশ্যে সিল মারার ঘোষণা দিয়ে যাচ্ছেন। তারা মিটিংয়ে বলাবলি করছেন প্রিসাইডিং অফিসার থেকে শুরু করে কেন্দ্রে নিয়োজিত সব আমাদের লোক। আমরা যাই বলব তারা তাই করতে বাধ্য। এছাড়া তারা কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে অবৈধ অস্ত্র-শস্ত্র মওজুদ করছে।

ইতিমধ্যে আমি নির্বাচন কমিশনসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। সুষ্ঠু এবং অবাধ নিরপেক্ষ ভোট প্রদানের সুবিধার্থে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রসহ হ্নীলা ইউনিয়নের সব কেন্দ্রে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েনের দাবি জানাচ্ছি। জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত এবং জানমাল রক্ষার্থে আমি জেলা প্রশাসক মহোদয়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, রিটার্নিং কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি’।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, শিল্পপতি সিরাজুল মনোয়ার, হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি সিরাজুল ইসলাম সিকদার, আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমদ, ফরিদুল আলম, আনারস মার্কার প্রার্থী শোভনের বড় ভাই জাহেদ হোছন সম্রাট, যুবনেতা শাকের আহমদসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের কর্মী-সমর্থকেরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অভিযোগ, কর্মী-সমর্থক, নৌকা প্রতীকের
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − 4 =

আরও পড়ুন