পর্যটন শিল্প বিকাশে ট্যুর গাইড ও চালকদের প্রশিক্ষ‌ণ সমাপ্ত

fec-image

পেশাগত মানন্নোয়নে পর্যটন শিল্পের বিকাশে ট্যুর গাইড এবং চালকদের ভুমিকা সম্প‌র্কে প্রশিক্ষ‌ণের সমাপনী অনুষ্ঠান অনু‌ষ্ঠিত হ‌য়ে‌ছে।

রোববার (২৮ অক্টোবর) সকা‌লে বান্দরবান জেলা সদরে হোটেল হিলটনের কনফারেন্স রুমে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড (বিটিবি), ইউএনডিপি এক্সিলারেটর ল্যাব এবং ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন অব কক্সবাজার (টিওএসি) এর যৌথ আয়োজনে ট্যুর গাইড এবং চালকদের পেশাগত মানন্নোয়নে তিনদিন ব্যাপী Tourism, First Aid and ICT শীর্ষক প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠান অনু‌ষ্ঠিত হয়।

এসময় ট্যুরিস্ট পুলিশ বান্দরবান জোনের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. আমিনুল হক বলেন, “পার্বত্য এলাকার পর্যটন শিল্পের বিকাশে ট্যুর গাইড এবং গাড়ীর চালকদের গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রয়েছে। তিনি পর্যটন শিল্পের প্রসারে স্থানীয় ট্যুর গাইডদের এলাকা সম্পর্কে পর্যাপ্ত ধারণা রাখার জন্য গুরুত্বারোপ করেন এবং পর্যটকদেরকে ট্যুরিস্ট স্পট পরিদর্শন করানোর পাশাপাশি স্থানীয় জনগণ এবং তাদের সংস্কৃতিকে পর্যটকদের নিকট তুলে ধরার আহ্বান করেন। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে গাড়ির চালকদের প্রতি গাড়ী চালানোর সময় প্রতিযোগীতার মনোভাব পরিহার করে নিরাপদে গাড়ী চালানোর জন্য অনুরোধ করেন।

তি‌নি আ‌রও ব‌লেন, ভালো আচরণ করে পর্যটকদের সাথে সুন্দর সম্পর্ক করলে পরবর্তীতে একই পর্যটক গাইড বা চালক হিসেবে আবার তাকেই বাছাই করে নিবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এতে আপনাদের আর্থিক সচ্ছলতা আসবে এবং কাজ না পেয়ে বেকার হয়ে বসে থাকার আশংকা থাকবে না।

বেড়াতে আসা পর্যটকগণকে সরকার কর্তৃক প্রণীত বিধি নিষেধ সমূহ নিজেরা অবগত হয়ে তাদেরকে অবহিত করার জন্য বলেন। প্রয়োজনে ট্যুরিস্ট পুলিশের সহযোগীতা নেয়ার জন্য আহ্বান করেন। স্থানীয় আদিবাসী সংস্কৃতি এবং মূল্যবোধকে গুরুত্ব দেয়ার জন্য তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে মিলেনিয়াম ট্যুর এন্ড ট্রাভেলস এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর এন্ড সিইও তৌহিদুল ইসলাম তোহা প্রশিক্ষণার্থীদেরকে তিনদিনের অর্জিত প্রশিক্ষণ বাস্তবে কাজে লাগিয়ে পেশাগত উৎকর্ষতা সাধনের জন্য আহ্বান জানান। পার্বত্য এলাকার বিশেষত বান্দরবান পার্বত্য জেলা এবং কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পের প্রতি গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, আগামীতে বাংলাদেশের পর্যটন খাতকে নেতৃত্ব দিবে বান্দরবান এবং কক্সবাজার জেলার পর্যটন। এই দুটি জেলা একই রুটে হওয়ায় এবং প্রাকৃতিকভাবে পাহাড়, সমুদ্র, দ্বীপ, ঝর্ণা থাকায় আগামীতে অধিকাংশ পর্যটকদের ট্যুরিস্ট ডেস্টিনেশন হিসেবে বান্দরবান এবং কক্সবাজার জেলাকে বেছে নেবে বলে মত প্রকাশ করেন।

তিনি পেশাগত মানন্নোয়নে প্রশিক্ষণ আয়োজন করার জন্য বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড এবং ইউএনডিপি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে পর্যায়ক্রমে সকল ট্যুর অপারেটর এবং গাড়ীর চালকদের প্রশিক্ষণের আওতায় নিয়ে আসার জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেন।

প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর তারেক তাহমিদ প্রশিক্ষনার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনদিনের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে অর্জিত নলেজকে কাজে লাগাতে হবে উল্লেখ করে বলেন, পর্যটন খাতে আইসিটির ব্যবহার এবং পর্যটকদের প্রয়োজনে ট্যুর গাইডদের ফার্স্ট এইড শেখানোর মাধ্যমে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশে কাজ করছে বাংলাদেশের উন্নয়নের অন্যতম অংশীদার ইউএনডিপি। তিনি পর্যটন খাতে নিয়োজিত পেশাজীবিদের মানন্নোয়নে প্রশিক্ষণ কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে বলে অবহিত করেন।

উক্ত প্রশিক্ষনে ৩০ জন ট্যুর অপারেটর এবং গাড়ির চালক অংশগ্রহণ করেন। সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে প্রশিক্ষনার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ এবং প্রশিক্ষন ভাতা প্রদান করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × two =

আরও পড়ুন