পলাতক হলেও নিয়মিত কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন মা-মেয়েকে রশি বেঁধে নির্যাতনকারী চেয়ারম্যান

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাংয়ে মা-মেয়েসহ ৫জনকে নির্যাতনকারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম এখনো অধরা রয়েছেন। পুলিশের খাতায় তিনি পলাতক থাকলেও আত্মগোপনে থেকে নিয়মিত ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। দলীয় বৈঠকেও নিয়মিত উপস্থিতি দৃশ্যমান।

শুক্রবার উপজেলার চেয়ারম্যানদের নিয়ে একটি বৈঠকেও উপস্থিত ছিলেন তিনি। এ ধরনের একটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হলে সচেতন মহলের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। চেয়ারম্যান মিরানের বিরুদ্ধে একটি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকলে তিনি এখনো গ্রেফতার হননি।

প্রসঙ্গত, গত ২১ আগস্ট মা-মেয়েসহ ৫ জনকে গরুচোর অপবাদ দিয়ে রশি বেঁধে দ্বিতীয় দফায় নির্যাতনের ঘটনায় চেয়ারম্যানকে প্রধান আসামি করে চকরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। ওই মামলায় পুলিশ তাকে খুঁজলেও তিনি পলাতক থাকায় গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

একইভাবে এ ঘটনায় চকরিয়া সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক রাজিব কুমার দেব সুয়োমুঠো একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় চকরিয়া সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপারকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। গত ৬ সেপ্টেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের পর বিচারক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এছাড়া মা-মেয়েসহ ৫ জনকে নির্যাতনের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের গঠিত স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শ্রাবস্তী রায়কে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি এ ঘটনা তদন্ত করেন। তদন্ত শেষে ৬ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসকের বরবারে প্রতিবেদন দাখিল করেন ওই কমিটি।

হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির আইসি (পরিদর্শক) আমিনুল ইসলাম বলেন, তাকে ধরা না ধরা এটা আইনের বিষয়।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়া, নির্যাতনকারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মিরানুল ইসলাম
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three + 13 =

আরও পড়ুন