পানছড়িতে আবাসিক প্রকৌশলীর অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, পানছড়ি:

মনগড়ামতো বিল আর গ্রাহকদের সাথে দুর্ব্যবহারের কারণে ক্ষেপে উঠেছে পানছড়ি হাজারো বিদ্যুৎ গ্রাহক।মঙ্গলবার(১৬জানুয়ারি) গ্রাহকদের ক্ষোভ বিষ্ফোরিত হয়ে জেলার পানছড়ি উপজেলার শত শত গ্রাহক নামে বিক্ষোভে। তাদের দাবি পানছড়িতে কর্মরত বিদ্যুতের আবাসিক প্রকৌশলীর অপসারণ চায়।

তার বিরুদ্ধে ভূতুড়ে বিল আর অনিয়মের অভিযোগে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে বিদ্যুৎ গ্রাহক ও টমটম মালিক-চালক সমিতি। সকাল ১১টা থেকে বিক্ষোভটি পানছড়ি বাজার এলাকা শুরু হয়ে উপজেলা পরিষদ এলাকা ঘুরে বাজার এলাকায় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্যে দিয়ে সম্পন্ন হয়।

এ সময় মোল্লাপাড়া গুচ্ছগ্রামের সাবেক প্রকল্প চেয়ারম্যান মো. ইউছুফ মিয়াসহ শতাধিক গ্রাহক অভিযোগ তুলে ধরে। টমটম মালিক ও চালক সমিতির  অভিযোগ, প্রতি মাসে  ৪ থেকে ৫ হাজার টাকার ভূতুড়ে বিল প্রদান করা হয় যার সাথে মিটারের রিডিংয়ের সাথে কোন মিল নেই। উপজেলা টমটম চালক ও মালিক সমিতির সভাপতি মো. আবুল হোসেন বলেন, এভাবে কেজি মাপা ধরে বিল দেয়া হয় তাহলে গরীব চালকদের মানবেতর দিন যাপন ছাড়া আর কোন উপায় নেই। সারা দিন শ্রম দিয়ে যা উপার্জন করে মাস শেষে তা বিদ্যুৎ বিলেই চলে যায়।

এ নিয়ে আরই’র কাছে গেলেও তিনি যুতসই ব্যবহার করেন না। সূতারাং উনাকে অপসারণ করলেই সব ঠিক হয়ে যাবে। ইজি বাইক সমিতির সভাপতি (দক্ষিণ) অমিত চাকমা বলেন, মিটার রিডিং অনুযায়ী বিল করার জন্য বারবার অনুরোধ করা সত্বেও আর’ই তা কর্ণপাত করছে না। আমরা এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

এ ব্যাপারে পানছড়িতে কর্মরত বিদ্যুতের আরই হুমায়ুন কবির বলেন. ডিসেম্বর’১৭ থেকে মিটার প্রতি ৭টাকা ৭০ পয়সা করে নির্ধারিত করে দেয়া হয়েছে। নির্দিষ্ট মিটার ব্যবহার না করলে টমটম প্রতি ৩০০ থেকে ৩৫০ ইউনিটের বিল দেয়ার নির্দেশনা রয়েছে। পানছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. বাহার মিয়া জানান, আবাসিক প্রকৌশলী ও টমটম সমিতির নেতাদের নিয়ে বসেছি সবার সাথে কথা বলেছি আশা করছি এ সমস্যার সমাধান হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 2 =

আরও পড়ুন