পানছড়িতে ৭১ বছরের পুরনো দ্বিতল মাটির ঘর

fec-image

পানছড়ি উপজেলার ২নং চেংগী ইউপি’র পাশাপাশি গ্রামে শোভা পাচ্ছে তিনটি দ্বিতল মাটির তৈরী ঘর। যার মাঝে চন্দ্র কার্বারী পাড়ায় একটি ও নীল মনি কার্বারী পাড়া তথা জগদীশ চেয়ারম্যান পাড়ায় দুটি। সবচেয়ে মজার বিষয় হলো চন্দ্র কার্বারী পাড়াস্থ সংঙ্খ সুর মহাজনের ঘরটি নির্মান করেছিল ১৯৫০ সালে। সে হিসেব মতে ঘরটির বর্তমান বয়স প্রায় একাত্তর বছর।

সংঙ্খ সুর মহাজন মারা যায় নব্বই দশকের আগে তার ছেলে আদর্শ বিকাশ চাকমাও মারা যায় ২০০৪ সালে। মাটির তৈরী দৃষ্টিনন্দন ঘরটিতে বর্তমানে বাস করছে তার সন্তানেরা। সেই আমলের টিনগুলো লালবর্ণ ধারণ করলেও এখনো অনেক মজবুত বলে জানালেন। সংঙ্খ সুরের নাতী লোগাং বাজার চৌধুরী উৎপল চৌধুরীর বয়স এখন বাষট্টি। তিনি জন্মের পর থেকে এই ঘর দেখে আসছেন এবং ঘরটি আজো অনেক মজবুত বলে জানালেন।

আদর্শ বিকাশ চাকমার ছেলে ছোটন চাকমা জানান, আট দরজা, সতের জানালার পাশাপাশি ঘরে কক্ষ রয়েছে সাতটি। দোতলায় উঠার সিড়িও মাটির তৈরী। অপরদিকে জগদীশ চেয়ারম্যান পাড়ার বাবুন্যা চাকমার ঘরটির বয়স প্রায় পঁয়ষট্টি। তাঁর সন্তান বীরসেন চাকমা মারা যাওয়ার পর তার পাঁচ ছেলে ও পাঁচ মেয়ে মাটির তৈরী এই দ্বিতল ঘরেই বড়ো হয়েছে। বর্তমানে বীরসেন চাকমার সন্তান দীপায়ন চাকমা পরিবার নিয়ে এই ঘরেই আছে। নয় দরজা, ষোল জানালা ও মাটির তৈরী সিড়ির এই বাড়ির চারিদিকে নানান বাগানে ভরপুর। মাটির তৈরী এই ঘরে থাকার মজাই আলাদা বলে জানালেন দীপায়ন চাকমা। একই গ্রামে সাবেক চেয়ারম্যান জগদীশ চাকমার ঘরটিও দ্বিতল। দীর্ঘ বছরের পুরনো ঐ ঘরে কেউ না থাকলেও বর্তমানে ধানের গোলা ও আড়ত হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। সবক’টি ঘরে গাছের মোটা ভীমের উপর তৎকালীন চিরানো কাঠ বসিয়ে মাটি দিয়ে ঢালাই করা দ্বিতল ঘরগুলো এক নজর দেখলেই চোখ জুড়াবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + 13 =

আরও পড়ুন