পানছড়ির গহীন অরণ্যে প্রমিলা ফুটবল দল

fec-image

পানছড়ি উপজেলার ৪নং লতিবান ইউপির প্রত্যন্ত এলাকার গ্রাম কারিগর পাড়া। পানছড়ি-খাগড়াছড়ি প্রধান সড়কের কুড়াদিয়াছড়া হয়ে সোজা পূর্ব দিকে আঁকা-বাঁকা পথ চলে কিলো পাঁচেক গেলেই গ্রামটির অবস্থান। গ্রামের নামে রয়েছে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়ের সামনে রয়েছে মাঝারি সাইজের একটি মাঠ । মাঠে ফুটবলের কারিগর নিজেরাই। সরেজমিনে গিয়ে মিলে প্রমিলা ফুটবলারদের।

আলাপ হয় শাপলা, মেন্টি, নিশা, ইয়াপ্রি, শয়নদুরী, দশিতা, সাজিনা, নবনীতা, সাম্পারী, লাভলী ও নাইসাপতি ত্রিপুরার সাথে। তারা সবাই বিদ্যালয় পড়ুয়া। দিনের বেলায় বাড়ির কাজকর্ম শেষে বিকাল ৩টা থেকে সবাই ফুটবলার। বিগত বছর খানেক ধরে তারা ফুটবলের মায়াজালে বন্দি হয়েছে। খেলা শেখানোর কোন কারিগর নাই বিধায় নিজেরাই কারিগর। কিছুক্ষণ খেলা উপভোগ করে দেখা যায় সবার পায়ে রয়েছে জোরালো শট। তাদের স্বপ্ন বড় ফুটবলার হবে। তাই তারা উচ্চতর প্রশিক্ষণ পেতে চায়। তাছাড়া তাদের ক্রীড়া সামগ্রীরও অভাব। বিশেষ করে বুট দিয়ে খেলায় অভ্যস্ত নয়। তাই তারা ক্রীড়া
সামগ্রী পাওয়ার আবদার জানায়।

ইতিমধ্যে ইউপি চেয়ারম্যান কিরণ ত্রিপুরা তাদের কয়েকটি ফুটবল দিয়ে সহযোগিতা দিয়েছেন। ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি দীপংকর ত্রিপুরা ও যুগ্ন সম্পাদক অভি রঞ্জন ত্রিপুরা জানান, মেয়েগুলো খেলার পাগল। প্রতিদিন বিকেল হলেই তারা ছুটে আসে অনুশীলনে। পানছড়ি ফুটবল একাডেমির প্রধান প্রশিক্ষক ক্যাপ্রুচাই মারমা জানান, প্রত্যন্ত অঞ্চলের মেয়েরা নিজেরাই ফুটবল অনুশীলন করে যা সচরাচর দেখা যায় না। তারা উপজেলা পরিষদ মাঠ এলাকা থেকে দুরে বিধায় তাদের প্রশিক্ষণের আওতায় আনা সম্ভব হচ্ছেনা। ক্যাম্পিংয়ের ব্যবস্থা করে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করলে তাদের খেলার মান উন্নতি হবে বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পানছড়ি, প্রমিলা ফুটবল দল
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − 15 =

আরও পড়ুন