পার্বত্যাঞ্চল মডেল পর্যটন জোনে পরিণত হবে- নব বিক্রম কিশোর

Rangamati Pic-16-01-16-03

স্টাফ রিপোর্টার:

শীঘ্রই পার্বত্যাঞ্চল মডেল পর্যটন জোনে পরিণত হবে বলে মন্তব্য করেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, এনডিসি। অপার সম্ভাবনাময় এ অঞ্চলের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি সৈন্দর্য্যের দিকে পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ইতিমধ্যে নানা উদযোগ গ্রহণ করেছে মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হয়েছে। আর তা খুব দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে। বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রাম পর্যটন সেক্টরগুলোতে নতুন পরিকল্পনা যোগ করা হচ্ছে। নতুন নতুন জায়গায় পর্যটন স্পট গড়ে তোলা হবে। তার জন্য প্রয়োজন পর্যটন সেক্টরে সম্পক্তি সকলে সহযোগিতা। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামকে একটি মডেল পর্যটন জোন হিসেবে গড়ে তোলার জন্য শান্তি-সম্প্রীতি বজায় রেখে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার জানান তিনি।

শনিবার সকাল ১০টায় রাঙামাটি জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত পার্বত্য চট্টগ্রাম পর্যটন সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক পর্যালোচনা সভা নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এসব কথা বলেন।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. সামসু জামান, রাঙামাটি অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক মো. মুস্তাফা জামান, জেলা পুলিশ সুপার মো. সাঈদ তরিকুল হাসান, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা সংসদীয় কমিটির সদস্য মো. শাহাজাহান মোল্লা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জাকির হোসেন চৌধূরী প্রমূখ।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা আরও বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে বিপুল সম্ভাবনা সুযোগ থাকলেও পর্যটন শিল্প কাঙ্খিত অগ্রগতি অর্জন করতে পারেনি। এ অঞ্চলে পর্যটন শিল্প এখনো আলোর মুখ দেখতে পারেনি। কিন্তু পর্যটন সম্ভাবনাকে পরিকল্পীতভাবে কাজে লাগানো গেলে পার্বত্যাঞ্চলের মানুষের জন্য বিপুল কর্মসংস্থানের সুযোগ যেমন বাড়বে, তেমনি আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ মধ্যেমে পর্যটন উন্নয়নে যেসব সমস্যা রয়েছে তা চিহ্নিত করা হচ্ছে। এসব সমস্যগুলো থেকে কিভাবে উত্তোরণ হওয়া যায় তার উপায় ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। পার্বত্যাঞ্চলের পর্যটন সেক্টরকে মাস্টার প্লানে মধ্যেমে উন্নয়নের করা হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + fourteen =

আরও পড়ুন