পার্বত্য চট্রগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড শিক্ষাবৃত্তির আবেদন শুরু

fec-image

২০২১-২২ অর্থ বছরে ‘পার্বত্য চট্রগ্রাম অঞ্চলের ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান’ এর লক্ষে দেশের বিভিন্ন কলেজ, ইনস্টিটিউট , বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমান, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের অধ্যয়নরত রাঙামাটি, খাগাড়াছড়ি ও বান্দরবান পার্বত্য জেলায় স্থায়ীভাবে বসবাকারী বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মেধাবী এবং পার্বত্য চট্রগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডে কর্মকর্তা- কর্মচারীদের পোষ্যদের নিকট হতে অনলাইনের শিক্ষাবৃত্তির জন্য আবেদন আহ্বান করা যাচ্ছে।

আবেদনের ঠিকানা: www.chtdb.gov.bd এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

আবেদনের সময়সীমা : ৩০ মে ২০২২ হতে ১৫ জুন ২০২২ খ্রি. রাত ১২টা পর্যন্ত।

আবেদনের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা:

১. স্ব স্ব জেলার প্রশাসক/সার্কেল চিফ কর্তৃক প্রদত্ত স্থায়ী বাসিন্দার সনদ।

২. উপজেলা চেয়ারম্যান/পৌর মেয়র /ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত পিতা/ আইননুগ অভিভাবকের বাৎসরিক আয়ের সনদ (পিতা/আইননুগ অভিভাবক চাকরিজীবী হলে চাকুরিরত প্রতিষ্ঠানের যথাযথ কর্তৃপক্ষ প্রদত্ত সনদ।

৩. সর্বশেষ সেমিস্টার/লেভেল/ বর্ষের নম্বরপত্র বা সার্টিফিকেট; (জুন ২০২০ খ্রি. এর পূর্বে প্রকাশিত ফলাফল গ্রহণযোগ্য নয়)।

৪. শিক্ষ প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত থাকা প্রমাণক হিসেবে সংশ্লিষ্ট শিক্ষ প্রতিষ্ঠান প্রধান/বিভাগীয় প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত প্রত্যয়ন পত্র (এ ক্ষেত্রে মেয়াদউত্তীর্ণ পরিচয়পত্র গ্রহনযোগ্য হবে না। স্ব স্ব কোর্সে ভর্তি হয়েছে তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে) অথবা সংশ্লিষ্ট শিক্ষ প্রতিষ্ঠানে/কোর্সে বর্তমানে অধ্যয়নরত থাকার অন্য কোন বৈধ/গ্রহণযোগ্য প্রমাণক সংযুক্ত করে আবেদন করতে হবে

৫.বিশেষ কোটা (যদি থাকে) স্বপক্ষে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র।

৬. ২০২০-২১ বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর শ্রেণি/বর্ষ/সেমিস্টার ও ফলাফল পরিবর্তন না থাকলে চলতি ২০২১-২২ অর্থ বছরের শিক্ষাবৃত্তির জন্য অবিবেচিত হবেন

৭. অসম্পূর্ণ আবেদন, দাপ্তরিক কাজে ব্যবহার অনুপযোগী ছবি, প্রয়োজনীয় সনদসমূহ যথাযথভাবে সংযুক্ত না না থাকলে আবেদন বিবেচনায় আনা হবে না।

৮. অনলাইন ফরমে ইনপুটকৃত ফলাফলের সাথে সংযুক্ত ফলাফলের মিল না থাকলে আবেদন বিবেচনায় আনা হবেনা।

৯. দাপ্তরিক কাজে ব্যবহার যোগ্য আবেদনকারীর সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি (৩০০*৩০০ পিক্সেল), স্বাক্ষর (৩০০*৮০ পিক্সেল) এবং অন্যান্য সনদ (১০০০*৭৫০ পিক্সেল) (jpeg) ফরমেট হতে হবে।

১০. ভুল /অস্পূর্ণ /তথ্য ও সৃজিত সনদপত্রের মাধ্যমে আবেদন না করার জন্য শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করা হলো। এতে প্রতিষ্ঠানের বাছাই সময়সাপেক্ষ ও ফলাফল প্রকাশে বিলম্ব হয়। দাখিলকৃত সনদপত্রসমূহ সত্যতা যাচাইয়ের নিমিত্ত সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নিকট প্রেরণ করা হবে । সনদপত্রে কোনো প্রকার অসামঞ্জস্যতা পরিলক্ষিত হলে সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীর আবেদন বাতিলসহ প্রয়োজনীয় আইননুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পার্বত্য চট্রগ্রাম, শি, শিক্ষবৃত্তি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten − 5 =

আরও পড়ুন